ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]: বর্তমানে সাধারণ জনগণ ও প্রতিষ্ঠানের জন্য ইন্টারনেট ব্যাপক সেবা প্রদান করছে। ফলস্রুতিতে, এ পদ্ধতি ব্যাংকিং জগতেও জনপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। ব্যাংকিং এর সাধারণ লেনদেন এবং তহবিল স্থানান্তর সংক্রান্ত ইলেকট্রনিক লেনদেনগুলো যেমন হিসাবের নিরীক্ষাকরণ, বিল প্রদান, শেয়ার ও বিনিয়োগ মিশ্রণ পরীক্ষাকরণ ইত্যাদি ইন্টারনেটের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকে। আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠানগুলো ইন্টারনেটের উপকারিতা উপলব্ধি করেছে যার ফলে তাদের ব্যবসায়ী কৌশলগুলো তরান্বিত হচ্ছে। আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলে ইন্টারনেট প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যাংকিং লেনদেনের সমস্যগুলোর সমাধান খুব দ্রুত পেয়ে থাকে।

Table of Contents

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইন্টারনেট ব্যাংকির এর কাঠামো (Forms of Internet Banking)

বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে চার ধরনের কাঠামো পরিলক্ষিত হয়। যেমন

১) নীট উপস্থিতি (Net Presence)

২) আন্তঃ সক্রিয় অবস্থা্ন (Interactive Site)

৩) ব্যক্তিগত কম্পিউটার হোম ব্যাংকিং (PC Home Banking)

৪) পূর্ণ ইন্টারনেট ব্যাংকিং (Full Internet Banking)

১) নীট উপস্থিতি (Net Presence) :

নীট উপস্থিতি বলতে বুঝায় ইন্টারনেট ব্যাংক-এ প্রাথমিক পর্যায়ে পদার্পণ। এটা ইন্টারনেট ব্যাংকিং-এ অংশ গ্রহণের এমন একটি পর্যায় যাতে ব্যাংকগুলো উল্লেখযোগ্যভাবে ইন্টারনেট ব্যাংকিং কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ না করে কিন্তু অংশ গ্রহণের প্রতি উদাসীন ও না থেকে অনুভব করে যে তারা ইন্টারনেট ব্যাংকিং-এ নাম মাত্র সংযুক্ত আছে।

২) আন্তঃ সক্রিয় অবস্থান (Interactive Site)

এটি ব্যাংক ও মক্কেলদের মাঝে আন্তঃ যোগাযোগের একটি ব্যক্তিকেন্দ্রীক সংল এখানে E-mail, Custom fill-out forms ইত্যাদির মাধ্যমে প্রতিটি মঞ্চেলের সংগে Web Site ব্যবহার করে ব্যক্তিকেন্দ্রীক সম্পর্ক স্থাপন করা হয়।

৩) ব্যক্তিগত কম্পিউটার হোম ব্যাংকিং ও পূর্ণ ইন্টারনেট ব্যাংকিং :

ইন্টারনেট হল বিভিন্ন পরস্পর সংযুক্ত নেটওয়ার্কগুলোর একটি গ্লোবাল নেটওয়ার্ক যার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটারগুলো স্যাটেলাইটের মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ এবং তথ্য আদান- প্রদান করে থাকে। ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় একজন গ্রাহক ইন্টারনেটের মাধ্যমে সাধারন ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারে। এই ব্যাকিং কার্যক্রমগুলোর মধ্যে এক হিসাব থেকে অন্য হিসাবে টাকা স্থানান্তর, হিসাব বিবরণী পরীক্ষা করা, বিভিন্ন বিল পরিশোধ, শেয়ার পোর্ট ফলিও পরীক্ষা করা ইত্যাদি অন্যতম।

অনেক সময় PC Home Banking এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং-এর মধ্যে সংশয় দেখা দেয়।-এ সাধারণত ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের আর্থিক সফ্টওয়ার প্যাকেজ Disk-এর মাধ্যমে সরবরাহ করে এবং গ্রাহকরা ঐ নির্দিষ্ট সফ্টওয়ার ব্যবহার করে অফ লাইনে (Off Line) এ ব্যাংকের প্রাইভেট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে লেনদেন সম্পন্ন করে। পক্ষান্তরে পূর্ণ ইন্টারনেট ব্যাংকিং-এ একজন গ্রাহক Floppy Disk বহন না করে যে কোন থেকে যে কোন সময় যে কোন স্থান থেকে তার একাউন্টে ঢুকে তার কাংঙ্খিত লেনদেন সম্পন্ন করতে পারে।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইন্টারনেট ব্যাংকে যে যে উপায়ে Web Site ব্যবহার করে (Ways in which Internet Banking Use in Web Site):

ইন্টারনেটের অন্যতম শক্তিশালী প্রয়োগ হচেছ বিশ্ব বিস্তৃত তরঙ্গ (World Wide Web / WWW) এ তরঙ্গের মাধ্যমে বিশ্বের যে কোন স্থান হতে তথ্য সংগ্রহ করে প্রয়োজনীয় স্থানে প্রেরণ করা সম্ভব। ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানগুলো এই Web এর কার্যক্রমে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ গ্রহণ করেছে। বর্তমানে ১০টি উপায়ের মাধ্যমে তারা Web-এ অংশগ্রহন করে। নিম্নে এগুলো সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ইঙ্গিত করা হল ঃ

i) প্রতীক ব্যবহার বা পণ্য সংকেত (Sign or maintenance of zero Presence) :

এটি ওয়েবে প্রবেশ করার সর্বপ্রথম এবং সবচেয়ে কম ব্যবহৃত পদ্ধতি। অনেকে এটাকে শূন্য অবস্থার মত বলে মনে করেন। ব্যাংক তার প্রতিষ্ঠানের নাম লোগো, ও টেলিফোন নাম্বার দিয়ে প্রাথমিকভাবে ওয়েবে অংশ গ্রহণ করে থাকে।

ii) শপ উইনডো (Shop Window) :

ওয়েবে অংশ গ্রহন করার পরবর্তী বহুল ব্যবহৃত পন্থা হলো শপ উইনডো (Shop Window)। এখানে ব্যাংক তাদের এবং তাদের উৎপাদিত পণ্য সম্পর্কে তথ্য প্রদান করে। এই তথ্যের মধ্যে রয়েছে বার্ষিক প্রতিবেদন, বিভিন্ন ধরনের ঋন সংক্রান্ত তথ্যাদি ইত্যাদি।

চিত্রঃ ওয়েভ সাইট ব্যবহার চিত্র

iii) অর্থ সংক্রান্ত উপদেশ (Financial Advice) :

গুয়েজ ব্যবহারের এই পর্যায়ে একজন মক্কেল ব্যাংক সেবাসমূহ সম্পর্কে তথ্যাদি (খ) সঞ্চয়, বিনিয়োগ, কার্ড ইত্যাদি) ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের অর্থ সংক্রান্ত উপদেশ (যেমনঃ নির্দিষ্ট এলাকায় নির্দিষ্ট মূল্যে নির্দিষ্ট বাড়ি ক্রয় করা ঠিক হবে কিনা) পেতে পারে।

(iv) ব্যাংক কিন্তু ব্যাংকিং (কার্যাবলী) নয় (The bank not the Banking):

একজন মক্কেল ইচছা করলে তার সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের নাম ব্যাংকিং কার্যাবলী সম্পর্কে এই ওয়েবের মাধ্যমে অবগত হতে পারে। ব্যাংকের স্বাভাবিক কার্যক্রম ছাড়াও অন্য যে সকল ক্রিয়া ব্যাংক নিয়োজিত থাকে সে সম্পর্কে এই ওয়েবে তথ্য পাওয়া যায়।

v) দি এক্সপ্লোডিং হোয়েল (The exploding whale)

ব্যাংকিং কার্যক্রম বহির্ভূত অতিরিক্ত তথ্যসমূহ ওয়েবের মাধ্যমে সবার কাছে পৌঁছে দেবার নামই হল exploding whale মক্কেলদের জন্য ভয়ংকর ক্ষতিকর ব্যাপারে সতর্কতা প্রদান অথবা চমৎকার আনন্দ ব্যাপারে তথ্য লাভ এই ভয়েতের মাধ্যমে সম্ভব।

vi) ব্যবসার কেন্দ্রস্থল (Hub for commerce)

ব্যাংকিং জগতে ব্যবসার কেন্দ্রস্থল (Hub for Commerce) একটি ব্যতিক্রমধর্মী র হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। এই ওয়েব কিছু ভার্চুয়াল সপিং মল থাকে। যেগুলো ব্যাংক এর মাধ্যমে পরিচালিত হয়। একজন মক্কেল ইচ্ছা করলে শুয়েবের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সাহায্য নিয়ে সপিং মলে লেনদেন করতে পারে।

vii) লেনদেনের সুবিধা প্রদানকারী (Facilitator of payment Transaction):

ইতিপূর্বে ওয়েবের সাথে কাংঙ্খিত বাজার তথা লেনদেন কেন্দ্রসমূহে প্রবেশ করে ক্রয়-বিক্রয়ে লেনদেন সম্পাদন অর্থাৎ দেনা পরিশোধ ও প্রাপ্য আদায় এই ওয়েবের মাধ্যমে করা যায়।

viii) আর্থিক হাতিয়ার বা পণ্য বিক্রয় (Selling Financial Products)

এই ওয়েবের মাধ্যমে অন-লাইন বাংকগুলো তাদের আর্থিক হাতিয়ার বা পণ্য, যেমন ক্রেডিট কার্ড, অন লাইন সুবিধা, ক্যাশ ক্রেডিটসহ শেয়ার, ঋণপত্র, বন্ড ইত্যাদি বিভিন্ন আর্থিক ও বাং সেবার প্রচার মক্কেলের কাছে পৌঁছে দিতে পারে। মকেল ইচছা করলে ব্যক্তিগত কম্পিউটারের সাহায্যে এই ওয়েবের মাধ্যমে ব্যাংকের কোন সেবা পাবার জন্য আবেদন করতে পারে এবং ক্রয়-বিক্রয়ের ইচছা প্রকাশ করতে পারে। প্রকৃতপক্ষে এই ওয়েবটি শুধুমাত্র ব্যাংক নয় বরং আধুনিক ব্যবসা জগতে একটি গবেষণার কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে বিবেচিত হচেছ।

ix) ইন্টারনেটে প্রবেশ (Gateway to the Internet Internet access provider):

সাধারণভাবে একটি সার্ভিস প্রভাইডার (Sevice Provider) এর মাধ্যমে মক্কেল আন্তর্জাতিক ওয়েবে (World Wide Web) এ প্রবেশ করতে পারে। এই ক্ষেত্রে ব্যাংক মক্কেল প্রথমে তার সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে টেলিফোন Dial করবে এবং তখন বাংক উক্ত মক্কেলকে ওয়েব এ প্রবেশ করার জন্য সাহায্য করে। কানেকশন পাবার পর তথ্য প্রদর্শিত হয়। ফলে এখন মকেল কম্পিউটারের মাধ্যমে তার দরকারী তথ্যসমূহ জানতে পারে।

x) হিসাব সেবা সমূহ (Account Transaction Service)

ওয়েবের এই পর্যায়ে অংশ গ্রহন করে ব্যাংক ইন্টারনেট ওয়েবের মাধ্যমে

হিসাব সেবা প্রদান করতে শুরু করেছে। মক্কেল তাদের ব্যাংকে রক্ষিত হিসাবের জের, অনুসন্ধান, বিল পরিশোষ, ফান্ড স্থানান্তর ইত্যাদি ইন্টারনেটের মাধ্যমে করার সুযোগ পায়।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এ ব্যবহৃত কতিপয় নির্বাচিত ধারণাসমূহ (Selected Concepts of Internet Banking)

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এ কতিপয় জনপ্রিয় ধারণা ব্যবহার হয়ে আসছে যার কয়েকটি সম্পর্কে নিম্নে পরিচিত দেয়া হল :

ইলেকট্রনিক মুদ্রা (Electronic Money)

ইহা এক ধরনের ইলেকট্রনিক মুদ্রা, যা বাইনারী চেইনের মত ‘শূন্য’ ও ‘এক’ এর মধ্যে দুটি চলক ইলেকট্রনিক লেনদেন সম্পন্ন করার জন্য এই ইলেকট্রনিক ‘মুদ্রা ব্যবহার করা হয়। দুটি কম্পিউটারের “সোয়াব বুস্ট” (Swap Busts)-এর বৈদ্যুতিক সাংকেতিক ব্যবহারে এইরূপ মুদ্রার লেনদেন সংগঠিত হয়। তিন ধরনের ইলেকট্রনিক মুদ্রা ইলেকট্রনিক লেনসেন এর ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। নিম্নে এই ধরনগুলো আলোচনা করা হলে

i) ইলেকট্রনিক ডেবিট ও ক্রেডিট ব্যবস্থা

ii) বিভিন্ন ধরনের স্মার্ট কার্ড

iii) নগদের বৈশিষ্ট্যসহ ডিজিটাল মুদ্রা

i) ইলেকট্রনিক ডেবিট ও ক্রেডিট পদ্ধতি (Electronic debit & Credit system )

ইলেকট্রনিক মদার হিসাবে ইলেকট্রনিক ডেবিট ও ক্রেডিট পদ্ধতি। এল তার অর্থ পরিশোধ কর ক্ষেত্রে ATM কার্ড ব্যবহার করে। ফলে মরুলের একাউন্ট থেকে অর্থ স্থান নিষ্পত্তিকরনের জন্যও ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা হয়। পাশ্চাত্য জগতে ইলেকট্রনিক ডেবিট ও ক্রেডিট পদ্ধতি বর্তমানে সেনসেন বিপত্তির ক্ষেত্রে বাস্তব মুদ্রাভিত্তিক লেনদেনের বিকল্প হিসেবে ধরে বিশ্বস্ততা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

ii) বিভিন্ন ধরনের স্মার্ট কার্ড (Smart Card) 

স্মার্ট কার্ড সাধারণত অগ্রিম পরিশোধিত ডেবিট কার্ড যাহা থেকে ইলেকট্রনিকভাবে মার্কেলের হিসাব থেকে নগদ টাকা স্থানান্তরিত হয়। যেমন- বাংলাদেশে ব্যবহৃত Phone Card একটি স্মার্ট কার্ড। উন্নত দেশগুলোকে ATM থেকে এবং অন্যান্য মেশিন থেকে এই ধরনের স্মার্ট কার্ডে ইলেকট্রনিক মুন্না ভর্তি করা যায় এবং পরবর্তীতে যথার্থ কৌশল আছে এমন স্থানে (যেমন পেট্রল পাম্প) ঐ স্মার্ট কার্ড ব্যবহার করে পণ্য বা সেবা মূল্য পরিশোধ করা যায়।

iii) প্রকৃত ডিজিটাল মুদ্রা যা নগদের বৈশিষ্ট্য বহন করে- True Digital Money, Which Has Many Propection of Cash

ইলেকট্রনিক মুদ্রার তৃতীয় রূপ/ধরণ হচ্ছে প্রকৃত ডিজিটাল মুদ্রা যা কিনা মুদ্রার একক মূল্যে “বাইট” হিসাবে কম্পিউটারের মেমোরিতে সংরক্ষণ করা হয়। উল্লেখ্য যে, এই মুদ্রা, প্রকৃত অর্থের সঞ্চিতি হিসাবের বিপরীতে রাখা হতেও পারে, নাও হতে পারে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ডের সহায়তায় ডিজিটাল মুদ্রা করা যায় এবং ইচছানুযায়ী বিভিন্ন পরিশোষের জন্য খরচ করা যায়।। কালক্রমে লেনদেনগুলো এতো সুক্ষ্ণ হচেছ ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কোন অকাতি থাকবে না। তাছাড়া নিয়ন্ত্রণও থাকবে না।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং [ Internet Banking ]

ইলেকট্রনিক বাণিজ্য (Electronic Commerce)

আধুনিক যুগে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে লেনদেনের ইচছা প্রকাশ, নমুনার তথ্য, পণ্য বা সেবার মান, চূড়ান্ত ক্রয়-বিক্রয় সহ মালের স্থানান্তর করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল তথ্যাদি ইন্টারনেটভিত্তিক হয়ে থাকে বিধায় অনেকেই এরূপ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সম্পাদিত আন্তর্জাতিক বাণিজ্যকে ইলেকট্রনিক বাণিজ্য বলে আখায়িত করে থাকে।

বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর ইলেকট্রনিক বাণিজ্য একটি বহুল আলোচিত বিষয়। বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এবং ইলেকট্রনিক বাণিজ্য দু’টিকে পৃথক বিষয় হিসেবে গণ্য করা হয়। ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় মক্কেলদেরকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে তার হিসাবে প্রবেশাধিকার দেয়, হিসাবের বিবরণী প্রকাশ করে বিল পরিশোধ, টাকা হস্তান্তর প্রভৃতি কার্য সম্পাদন করা হয়। অন্যদিকে ইলেকট্রনিক বাণিজ্যে সকল প্রকার পরিশোধ ইন্টারনেটের মাধ্যমে সম্পন্ন হয় এবং মনে করা হচ্ছে অদূর ভবিষ্যতে ইলেকট্রনিক বাণিজ্য ও ইন্টারনেট ব্যাংকিং বিষয় দুটিকে অভিন্ন বিষয় হিসাবে বিবেচনা করা হবে।

উল্লেখ্য যে,

ডিজিটাল মুদ্রা (Digital Currency) :

ডিজিটাল মুদ্রাকে নগদ মুদ্রার সাথে মূল্যায়ন করা হয়। কারণ প্রচালিত মুদ্রার অনেক বৈশিষ্ট ডিজিটাল মুন্নার মধ্যে পরিলক্ষিত হয়। এখানে পেমেন্ট পরিশোধ করার জন্য ব্যাংকের অথবা তৃতীয় কোন পক্ষের অনুমোদনের প্রয়োজন হয় না। মঞ্চেলরা অংশগ্রহনকারী ব্যাংক (Participating Bank) থেকে রূপক নগদ টোকেন (Metaphorical Cash Token) ক্রয় করে। এই ইলেকট্রনিক কয়েনকে (Coins) ডিজিটাল মূল্য একক (Digital Value Units/DVU) বলা হয়।

এই কয়েন মালিকের Local hard drive-এ রেখে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রচলিত মুদ্রার মত খরচ করা যায়।

এই পদ্ধতির মাধ্যমে ক্রেতা ও বিক্রেতা তৃতীয় পক্ষ বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাহায্যে ছাড়াই সরাসরি ফান্ড স্থানান্তর করতে পারে।

আরও পড়ুনঃ

মন্তব্য করুন