ঋণ তদারকি কার্যক্রম [ Loan Supervision Activities ]

ঋণ তদারকি কার্যক্রমঃ ব্যাংক কোন ক্রমেই ঋণ কার্যক্রমে ত্রুটির কারণে অথবা ঋণ গ্রহীতা ইচ্ছা অনিচ্ছাকৃত অবহেলা হেতু খেলাপী হতে দিতে পারে না। খেলাপী অথবা বিলম্বিত ঋণ আদায় ব্যাংকের জন্য লোকসানের কারণ। সেহেতু বিশিষ্ট ব্যাংক বিশারদ Ronald I Robinson এর মতে, “a bank never makes a bad loan, that loans get back only after they are made. banks can not make loans and then forget them.”

ঋণ তদারকি কার্যক্রম [ Loan Supervision Activities ]

ঋণ তদারকি কার্যক্রম [ Loan Supervision Activities ]

Robinson ব্যাংকের ঋণ সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন তা প্রণিধান যোগ্য। উল্লেখিত বক্তব্যটুকু দু’ভাগে ভাগ করলে দেখা যাবে

(ক) ব্যাংক কু-ঋণে পর্যবেশিত হবে এমন ঋণ মঞ্জুর করতে পারে না। মন্দ ঋণে রূপান্তরিত না হওয়ার জন্য যথেষ্ট সতর্কতা ও যত্ন নেওয়া সত্ত্বেও যদি কুঋণ হয়েই যায় তখনই ব্যাংক ঋণের ঐ অংশকে কু ক্ষণ বলে ধরা হবে। অর্থাৎ সহজেই কুক্ষণে রূপান্তরিত হতে ব্যাংক দেয় না।

(খ) ব্যাংক কখনও ঋণ বিতরণ করে কণকে ভুলে থাকে না। অর্থাৎ প্রদত্ত ঋণ সুদে আসলে সম্পূর্ণ আদায় না হওয়া পর্যন্ত ব্যাংক নিয়মিত ঋণ গ্রহীতার সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে এবং ঋণ গ্রহীতাকে চুক্তিমোতাবেক ঋণ ফেরৎ দিতে উদ্বুদ্ধ করে। রবিনসনের দুটো কথাই যে বাণী বহন করছে তা ব্যাংক ঋণ তদারকি ছাড়া আর কিছুই নয়।

(Robinson RI The Management of Bank Fund” 1962. P-178.) লেখকের মতে তদারকি বলতে, ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ যে প্রক্রিয়া বা ব্যবস্থার মাধ্যমে সঠিক গ্রাহকের মধ্যে কণ বন্টন, ঋণের উত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করণ ও সর্বোপরি ঋণ গ্রহীতার আর্থিক অবস্থার উন্নতি সাধন করে সঠিক সময়ে ঋণ পরিশোধে ঘাতকদেরকে সক্ষম করে তোলেন তাকেই তদারকি বলা যায়।”

ক্ষণ তদারকি সাধারণত ঋণ বিতরণের পরেই আরম্ভ হয়। দক্ষ ঋণ তদারকি ঋণ আদায় ত্বরান্বিত করে। কিন্তু ঋণ আদায়ের পূর্বে ঋণ বিশ্লেষণের জন্য আহরিত তথ্য সংগ্রহ কালেও এরূপ তদারকি অর্থাৎ অনুসন্ধান বা সাক্ষাৎকার তথ্য ঋণ মঞ্জুরীর কিছুকাল পূর্বে ঋণ আবেদনকারীর সংগে সখ্যতা স্থাপন করে পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে সঠিক ঋণ গ্রহীতা চিহ্নিত করা সহজতর হয়। অন্যথায় কেবল প্রতিবেদন বিবরণী ও আনুষ্ঠানিক সাক্ষাৎকার বা অনুসন্ধান অনেক সময়ই বিশ্বাসযোগ্যভাবে উপস্থাপন করা হয়ে থাকে।

যার উপর ভিত্তি করে ক্ষণ বিশ্লেষন ভুল সিদ্ধান্তে উপনীত হতে বাধ্য করে। কিন্তু এরাপ আনুষ্ঠানিক তথ্য ও বৈঠক ছাড়াও ঋণ মঞ্জুরীর পূর্বে কিছুদিন ঋণ আবেদনকারীকে অনানুষ্ঠানিক ভাবে পর্যবেক্ষণ করলে তার নিজের ও তার ব্যবসায় সম্পর্কে নির্জলা সত্য উৎঘাটন সম্ভব। অপরদিকে ব্যাংক একবারই কোন মক্কেলকে ঋণ দিবে একথা ঠিক নয়।

ঋণ পরিশোধের পরেও ঋণ পরিশোধকারী ক্ষণ দাতার সংগে পরিমিত যোগাযোগ ও সুসম্পর্ক বজায় রাখলে পুনরায় ঋণ পরিশোধকারী মক্কেলকে নতুন ঋণের জন্য উদ্বুদ্ধ করা সম্ভব। অতএব ব্যাংকের নির্ভরযোগ্য মকেলের সংখ্যা বাড়ে এবং ঋণ খেলাপী হার অনেকটা কমে যায়। ইতিপূর্বে উপস্থাপিত আলোচনা থেকে প্রতীয়মান হয় যে কোন একটি ঋণের তদারকি কার্যক্রম কেবল এক পর্যায়ে সম্পাদন না করে তিন পর্যায়ে করা ব্যাংকের জন্য অপেক্ষাকৃত বেশী সুফল বয়ে আনে। অর্থাৎ

ঋণ তদারকি কার্যক্রম [ Loan Supervision Activities ]

১। ঋণ মঞ্জুরীর পূর্বে ঋণ আবেদনকারীকে পর্যবেক্ষণ ও তদারকি করা।

২। ঋণ বিতরণ পরবর্তীকালে ঋণ আদায় সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত ঋণ ব্যবহার মক্কেলের নগদ আন্তঃপ্রবাহ ত নগদ বহিঃপ্রবাহ ইত্যাদি সর জমিনে সম্পূর্ণ রক্ষা করে তদারকি কার্যক্রম বজায় রাখবে।

৩। ঋণ পরিশোধ সমাপনান্তে পরিশোধকৃত ঋণ গ্রহীতার সাথে পরিমিত গঠনমূলক ব্যবসায়ীক বিনিয়োগ পরামর্শের মাধ্যমে প্রমানিত নির্ভরযোগ্য ঋণ গ্রহীতাকে পুনঃপুনঃ ব্যাংকে ঋণ মক্কেল হিসেবে পাওয়া ব্যাংকের জন্য অধিকতর লাভজনক নিরাপদ অপেক্ষাকৃত কম ঝুঁকি সম্পন্ন এবং মুষ্ঠিয়া পরিহারক।

এই তিনধরণের তদারকি পর্যায়ে ব্যাংকের তদারকি দায়িত্ব নিয়োজিত কর্মচারীবৃন্দ তাদের মোট তার সময়ের কতটুকু ব্যবহার করবে তা নিম্ন চিত্র থেকে দেখা যেতে পারেঃ

পর্যায় ভেদে তদারকী সময় বণ্টন

  • প্রথম পর্যায়ে ২০% [ ঋণ বিতরণ পূর্বে ]
  • দ্বিতীয় পর্যায় ৭০% [ ঋণ বিতরণ থেকে আদায় পর্যন্ত ]
  • তৃতীয় পর্যায়ে [ ১০% ঋণ পরিশোধ পরবর্তী ]

 

ঋণ তদারকীর পন্থাসমূহ : Ways of Loans Supervision

নানাভাবে ঋণ তদারকির নজির রয়েছে। কোন একটি পন্থাই সম্পূর্ণ লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম নয়। একটি পন্থার অবস্থা ভেদে প্রয়োজনীয় আরও কয়েকটি পন্থা অবলম্বন করে তদারকি পরিচালনা করলে সুষ্ঠুকাংখিত ভাবে ঋণ কার্য সম্পাদন সম্ভব। যাহোক নির্মে প্রধান কয়েকটি ঋণ তদারকি পন্থা আলোচনা করা

১। ব্যক্তিগত যোগাযোগ | Personal Contact

২। নির্দিষ্ট মেয়াদান্তে প্রতিবেদন : Periodical Reports

৩। আর্থিক বিবরণী : Financial Statement

৪। আমানত জের গতি ধারা : Trends of Deposit

৫। ঋণগ্রহীতার সংগে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তথা ব্যক্তি বর্গের নিকট থেকে তথ্য সংগ্রহ Collection: of information from those having business transaction with the borrower.

৬। পরিকল্পিত ও প্রকৃত অর্থাগমন নির্গমনের পার্থক্য চিত্র সংগ্রহ। Collection of Variation of Statement of Planned and Actual Fund

উপরোল্লিখিত ক্ষণ তদারকির বিভিন্ন পন্থা সমূহের স্বল্পাকারে নিম্নে আলোচনা করা গেল

ঋণ তদারকি কার্যক্রম [ Loan Supervision Activities ]

১। ব্যক্তিগত যোগাযোগ- (Personal Contact) :

রীতার সম্পর্কিত তদারকির জন্য সময়ে সময়ে অনুষ্ঠিত সভা সেমিনারে ও আলোচনায় অংশ গ্রহণ করতে পারে। ব্যবসায় জড়িত মালিক শ্ৰেণী কর্ম কর্মচারীর নিকট থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে ব্যবসায়ের আর্থিক অবস্থা ভালো মন্দের দিক বিবেচনা করে ঋণ তদারকি সম্ভব হয়ে থাকে। এছাড়াও ব্যবসায়ীক লেনদেনে ঘড়িত অন্যান্য ব্যক্তিবর্গের সংগে সরাসরি যোগাযোগ করে ও আর্থিক অবস্থার নানাবিধ দিক সম্পর্কে জেনে সেই ভাবে পদক্ষে

২। নির্দিষ্ট মেয়াদান্তে প্রতিবেদন (Periodical Reports)

দানের পর ঋণ গ্রহীতার আর্থিক অবস্থা সম্পর্কে অবগত হওয়ার লক্ষ্যে নির্দিষ্ট মেয়াদান্তে ব্যবসায়ের প্রতিবেদন সংগ্রহের মাধ্যমে তদারি সম্ভব। সংগৃহীত প্রতিবেদন বিচার বিশ্লেষণ ও পর্যালোচনা করে ঋণ সম্পর্কে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভ তা খতিয়ে দেখতে হয়। প্রতিবেদনে ত্রুটি লক্ষ্য করা গেলে প্রয়োজনে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করানো হয়ে থাকে।

৩। আর্থিক বিবরণী (Financial Statement)

ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থা সম্পর্কে অবগত হওয়ার জন্য আর্থিক বিবরণী সংগ্রহ করতে হয়। সুষ্ঠু তদারকির লক্ষ্যে এ আর্থিক বিবরণী সংগ্রহের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের লাভ লোকসানের পরিমাণ অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। তুলনামূলক কম লাভ বা লোকসান হলে তার কারণ অনুধাবন করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়ে থাকে।

৪। আমানতের জের গতিধারা-(Trends of Deposit Banlace)

কোন কোন ঋণ প্রধান কালে শর্ত থাকে যে ব্যাংকে ন্যূনতম আমানত সংরক্ষণ করতে হবে। উক্ত শর্তানুযায়ী ব্যাংকে রক্ষিত আমানতের শর্তানুযায়ী না থাকলে তদারকির দায়িত্ব নিয়োজিত ব্যক্তি ঋণ গ্রহীতাকে অবহিত করাবেন। প্রদানকারী ব্যাংক ছাড়া অন্য ব্যাংক গুলোতে ঋণগ্রহীতার আমানতের ঘের আছে কিনা তার তদারকি করে থাকবেন। আমানতের জের ন্যূনতম কোঠায় উপনীত হলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবেন এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

৫। গ্রহীতার সংঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তথা ব্যক্তিবর্গের নিকট থেকে তথ্য সংগ্রহ (Collection of Information fromthose having Business Transaction with the Borrower)

ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ঋণ প্রদান করা হয়েছে প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত অন্যান্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক লেনসেনের অবস্থা সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করতে হবে। ক্ষণ মধ্যকার নিকট পাওনা ও দেনার পরিমাণ উক্ত লেনদেনের প্রকৃতি সম্পর্কে অবহিত হায় সে অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হয়।

৬। ব্যবসায়ে পরিকল্পিত ও প্রকৃত অর্থাগমন নির্গমনের পার্থক্য চিত্র সংগ্রহ Collection of Variation of Statement of Planned and Actual Fund :

ঋণ গ্রহীতার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট মেয়াদের পরিকল্পিত (planned) অর্থাগমন নির্গমন চিত্র এবং প্রকৃত (actual) অর্থাগমন নির্গমনের চিত্র সংগ্রহ করে তুলনামূলক বিশ্লেষন করতে হবে। পরিকল্পিত ও প্রকৃত অর্থাগমন নির্গমনের মধ্যে খুব বেশী পরিমাণ পার্থক্য বিরাজ করছে কিনা তা হিসাব করতে হবে। উক্ত পার্থক্য ঋণ কিস্তি পরিশোধে প্রতিকূল অবস্থার সৃষ্টি হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে হয়।

আরও দেখুনঃ

মন্তব্য করুন