কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]

কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]সমস্যার সমাধান বিজ্ঞান ভিত্তিক ও যৌক্তিক হওয়া আবশ্যক। অন্যথা বিশৃঙ্খলা বা খামখেয়ালীভাবে সমাধান খুজলে উদ্ভূত সমস্যা থেকে পরিত্রান পাওয়া তো দূরের কথা বরং নতুন নতুন সমস্যার মাত্রা যোগ হয়ে আসল বা মূল সমস্যা আরও জটিল হয়ে যেতে পারে। এরূপ অবস্থায় ব্যাংক তথা সমাধান খোঁজার কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গ দিশেহারা হয়ে পড়ে।

এ কারণেই ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ ও অভিজ্ঞা কর্মকর্তাদের দিক নির্দেশনা হল সমস্যা সমাধানকল্পে আন্তরিকভাবে কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করলে সুশৃঙ্খলভাবে কেস বিশ্লেষণ করে অপেক্ষাকৃত ত্রুটিহীন সমাধান খুঁজে বের করা সম্ভব। কেস বিশ্লেষণ এর ধাপ সমূহ বিভিন্নতর হতে পারে। কেউ কেউ তিন স্তর ভিত্তিক আবার কেউ কেউ সাত স্তর ভিত্তিক কেস বিশ্লেষণের নির্দেশনা দিয়ে থাকে। তবে লেখকের মতে, নিম্নোক্ত ছয়টি ধাপে সমাধানকরে সে বিশ্লেষণ করা সহজতর।

কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]

কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]

যে ছয়টি ধাপে কোন নির্দিষ্ট সমস্যা সমাধানকল্পে অগ্রসর হওয়া উচিত সেগুলো হলো :

১. অবস্থার পরিবেশ বিশ্লেষন

২. উদ্ভূত সমস্যার প্রধান ইসা চিহ্নিতকরণ।

৩. উদ্ভুত সমস্যার সঙ্গে জড়িত প্রধান ব্যক্তিবর্গ সনাক্তকরণ।

৪. উদ্ভূত সমস্যার প্রধান কারণ বা নির্ধারিত চিহ্নিতকরণ।

৫. চিহ্নিত সমস্যাটির বিকল্প সমাধান সনাক্ত করে প্রতিটি বিকল্পের সুবিধা ও অসুবিধা নির্দিষ্টকরণ

৬. উত্তম বিকল্পের অনুকূলে সিদ্ধান্ত গ্রহন।

নিম্নে ধাপগুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হল :

কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]

১. অবস্থার পরিবেশ বিশ্লেষণ (Analysis of the Environment of the Situation) :

যে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক আইনগত ও বাজারের পরিবেশে আলোচিত অবস্থাটি তথা সমস্যাটি বিশ্লেষিত হবে সেগুলোর প্রভাব সর্বপ্রথমেই পর্যবেক্ষণ করা আবশ্যক।

২. উদ্ভুত সমস্যার প্রধান ইস্যু চিহ্নিতকরণ (Identify the Main Issue of the Problem) :

কোন সমস্যা বা কেস স্টাডি বিচার বিশেষ করতে গেলে প্রথমেই চিহ্নিত করতে হবে যে, সত্যি সমস্যাটির ধরণ, আকার ও গভীরতা কতটুকু।

৩. উদ্ভূত সমস্যার সংগে জড়িত প্রধান ব্যক্তিবর্গ চিহ্নিতকরণ-(Indentify the main Actors in connection with the problem) :

কোন একটি সমস্যার উৎপত্তির মূলে যে ব্যক্তিবর্গ জড়িত থাকে তাদেরকে সঠিকভাবে চিহ্নিতকরণ অর্থাৎ কোন ব্যক্তি সমস্যাটি সৃষ্টি করেছে, কার অবহেলার কারণে সমস্যাটি সৃষ্টি হয়েছে এবং বর্তমানে কোন কোন ব্যক্তি সমস্যাটি সমাধানে অবদান রাখতে পারে এরূপ ব্যক্তিবর্গকে বাছাই করে নির্দিষ্ট করণ।

৪. উদ্ভূত সমস্যার প্রধান কারণ বা নির্ধারক চিহ্নিতকরণ (Identify the Main Causes of or Determinants of the problem):

আলোচিত সমস্যাটি কি কারণে ঘটেছে অথবা সমস্যাটি ঘটার নেয়ামক তথা নির্ধারক কি কি বিচার বিশ্লেষণ করে দ্বিধাহীনভাবে এরূপ কারণ তথা নির্ধারকসমূহ চিহ্নিত করলে সমাধান খোজা সহজতর হয়। অর্থাৎ যে যে কারণে বা যে যে নির্ধারক। থাকার ফলে সমাধান উদ্ভূত হয়েছে সেসব কারণ বা নির্ধারকসমূহ দূরীভূত করলে সমাধানের লক্ষ্যে অগ্রসর হওয়া স্বাভাবিক।

৫. চিহ্নিত সমস্যাটির বিকল্প সমাধান সনাক্ত করে প্রতিটি বিকল্পের সুবিধা ও অসুবিধা নির্দিষ্টকরণ-(Identify the Alternative solution and locating the advantages and disadvantages of cash of the alternative) :

সমস্যাটির কারণ সুনির্দিষ্ট করার পর স্বাভাবিকভাবেই কয়েকটি বিকল্প সমাধান থাকতে পারে। সম্ভাব্য বিকল্পগুলো দুই, তিন, চার এমনকি পাঁচও হতে পারে। কিন্তু সমাধান হবে মাত্র একটি। সেইহেতু প্রত্যেকটি বিকল্পের কি কি ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক আছে, বা কি কি সম্ভাব্য আর্থিক সুবিধা ও সম্ভাব্য আর্থিক খরচ বহন হতে পারে, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কি কি গুণাগুণ সুবিধা বা অসুবিধা হতে পারে সেগুলো চিহ্নিত করে প্রত্যেকটি বিকল্প সম্পর্কে সম্পূর্ণ পরিষ্কার ধারণা লাভ করা আবশ্যক।

৬. উত্তম বিকল্পের অনুকূলে সিদ্ধান্ত গ্রহন (Deciding in favour of the best alternative) :

উত্তম বিকল্প নির্বাচন করার জন্য প্রয়োজন ৪ নং ধাপে বর্ণিত চিহ্নিত বিকল্পসমূহের সুবিধা, অসুবিধার নিরিখে আপেক্ষিকতা ভিত্তিক ওজন করে দেখা অর্থাৎ বেশী সুবিধা এবং সবচেয়ে কম খরচ অর্থাৎ নেতিবাচক দিক কম এরূপ বিকল্পটি সমাধানের জন্য উত্তম বিকল্প হিসেবে পরিগণিত করতে হয়।

কেস স্টাডির ধাপসমূহ [ Stages of Case Study ]

উল্লেখ্য যে সর্বদা সুবিধা, অসুবিধা ভিত্তিক নির্ধারিত উত্তম বিকল্প সমাধানের জন্য গৃহীত নাও হতে পারে। স্থান, কাল-পাত্র অর্থাৎ হেড অফিস, আঞ্চলিক অফিস, শাখা অফিস অপরপক্ষে, বোর্ড, প্রধান নির্বাহী, আঞ্চলিক নির্বাহী, শাখা ব্যবস্থাপক বা শাখার অধঃস্থন কর্মকর্তা ইত্যাদি ভেদে প্রয়োগের জন্য নির্ধারণ করতে হয়। অপরপক্ষে ব্যাংকের প্রাথমিক অবস্থায়, অনগ্রসরমান অবস্থায় বা পূর্ণতা অর্জিত অবস্থার ভেদে বিকল্প প্রযুক্ত হতে পারে। এতদভিন্ন কোন আর্থিক বছরের প্রথম অবস্থায় এবং আর্থিক বিবরণী প্রস্তুতকালীন সময়ে ভিন্নতর বিকল্প গ্রহন করে সমাধান খোঁজা যেতে পারে।

মনে রাখতে হবে প্রতিটি বিকল্পই সমাধানের জন্য গৃহীত হতে পারে যদি সমাধান চিহ্নিতকারী তার দ্বারা গৃহীত বিকল্পটির সুসম্পষ্ট ও সঠিক যৌক্তিকতা দেখাতে সক্ষম হয় ।

আরও দেখুনঃ

 

মন্তব্য করুন