তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখা [ Handling Bank Liquidity Crisis ]

তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখাঃ তারল্য ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত ব্যাংকের স্পর্শকাতর সমস্যাসমূহ Sensitive Problems Relating to Bank’s Liquidity :

তারল্য ব্যবস্থাপনা বাণিজ্যিক ব্যাংকের একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। এই সমস্যা অনেক কারণে উদ্ভুত হতে পারে।

তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখা [ Handling Bank Liquidity Crisis ]

Table of Contents

তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখা [ Handling Bank Liquidity Crisis ]

যে যে তারল্য ব্যবস্থাপনা ত্রুটির কারণে এরূপ সংকট পোহাতে হয় তার প্রধান কয়েকটি নিম্নরূপ :

(ক) স্বল্প মেয়াদী তহবিল দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগে প্রয়োগ।

(খ) দায়ের বড় অংশ অতি অল্প সময়ে পরিশোধ।

(গ) সুদের হার প্রতি অতিশয় সংবেদনশীল।

(ঘ) ব্যাংকের বড় মক্কেলদের তথ্য প্রাতিষ্ঠানিক মক্কেলদের আমানত ও ঋণ ব্যবহারের প্রতি উদাসীনতা ও সতর্ক দৃষ্টির অভাব।

(ঙ) ঋণ আদায় ও ঋণ রূপান্তর কার্যক্রম দক্ষতা উন্নয়ন।

(চ) ব্যাংকের মর্যাদা-স্তর বিন্যাসকারী সংস্থার সংগে যোগাযোগ রাখা।

(ছ) মুদ্রাবাজারে প্রভাব বৃদ্ধি করণ।

(জ) অদক্ষ কাউন্টার সেবা ।

উল্লেখিত কারণ সমূহের স্বল্পাকারে আলোচনা পরবর্তী পৃষ্ঠায় করা গেল :

(ক) স্বল্প মেয়াদী তহবিল দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগে প্রয়োগ (Short Term Fund use in Long Term Investment) :

ব্যাংকের অভিজ্ঞ ব্যবস্থাপনা কখনই স্বল্পমেয়াদী তহবিলকে যত লাভের সম্ভাবনাই থাকুক না কেন শীর্ষ মেয়াদী বিনিয়োগে ব্যবহার করে না। কিন্তু তারল্য সংকটে পতিত হয়ে দেউলিয়াত্ব পরিগ্রহ করেছে এরূপ অনেক ব্যাংকের প্রাথমিক তারল্য সংকট বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে যে, ব্যাংক তহবিল ব্যস্থাপনাকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার স্বস্তা প্রশংসা কুড়ানোর জন্য এরূপ ভ্রান্ত বিনিয়োগ নীতি অনুশীলন করেছিল। পরিশেষে বড় অংকের এরূপ দীর্ঘ মেয়াদী বিনিয়োগের স্বল্প মেয়াদী তহবিলের তলব মিটাতে গিয়ে প্রায় ব্যাংক ব্যর্থ হয়ে দুর্দশা গ্রস্থ হয়ে পড়েছে। অতএব স্বল্পমেয়াদী বিনিয়োগের জন্য স্বল্পমেয়াদী উৎসের তহবিল এবং দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের দীর্ঘ মেয়াদী উৎসের তহবিল ব্যবহার করাই বিজ্ঞ জনচিত।

তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখা [ Handling Bank Liquidity Crisis ]

(খ) দায়ের বড় অংশ অতি অল্প সময়ে পরিশোধ-(Large Proportion of Liabilities is paid in short

বিজ্ঞ ব্যাংক কর্মকর্তাগণদের দায়সমূহকে বিভিন্ন মেয়াদ, উৎস, ঋণপত্র ইত্যাদিতে সুবিন্যাস্ত মিশ্রণে রাখতে হয়। এতে দায় পরিশোধে ব্যাংকের ঝুঁকি থাকে কম এবং এককালে পরিশোধের প্রয়োজন হয় না। উদাহরণ স্বরূপ মোট আমানতের শতকরা ৬০ ভাগ চলতি আমানত হলে সে ব্যাংক বা ব্যাংক শাখা কখনই বড় ধরণের বিনিয়োগের ঝুঁকি নিতে পারে না। কিন্তু এরূপ তহবিল যে কোন সময়ে উত্তোলন চাহিদা পূরণে বিলম্ব অথবা গড়িমসি হলে ব্যাংকের সুনাম ক্ষুন্ন হওয়ার সম্ভাবনা অনেক ।

(গ) সুদের হারের প্রতি অভিনয় সংবেদনশীল (Over Sensitiveness of the Rates of Interest)

সুদের হার যদিও ব্যাংক ব্যবসায়ের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তবুও সুদের হার কমলে বা বাড়লে অতি উৎসাহী হয়ে অসম্ভব পরিমাণ ঋণ প্রদান বা আমানত সংগ্রহ উভয়ই অপরিকল্পিত ভাবে তহবিল ব্যবস্থাপনায় ভারসাম্যহীনতা সৃষ্টি করতে পারে। এতে আমানত ও ঋণ উভয় দিক থেকেই তারল্য চাহিদা বেড়ে যাওয়া বা অতিশয় কমে যাওয়া সম্ভব।

সুতরাং সুদের হার বাড়লে বা কমলে আমানত কি পরিমাণ কম হবে তাদের থেকে এবং কি ধরণের মিশ্রণে নিলে তাৎক্ষণিক, স্বল্পমেয়াদী ও মধ্যমমেয়াদী তারল্য প্রয়োজনীয়তা কতটুকু হবে তা পূর্বাভাস করে দেখ আবশ্যক। এভাবে পরিকল্পিত ভাবে বিনিয়োগ যোগ্য তহবিল নিরূপন করে কিরূপ মেয়াদে সুদ বেশী হলেও ঋণ প্রদান ও ঋণপত্র ক্রয় স্বল্পমেয়াদী ও মধ্যম মেয়াদী তারল্য ব্যবস্থাপনায় প্রভাব রাখবে তা পূর্বাহ্নে আঁচ করে কেবল পরিকল্পিত ভাবেই ঋণ পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ, তড়িঘড়ি করে নয়। অন্যথায় ব্যাংক তহবিল ব্যবস্থাপকের ত্রুটি জনিত সিদ্ধান্তের কারণে সৃষ্ট তারল্য সংকট উত্তোরণে ব্যাংককের হিমশিম খাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

(ঘ) ব্যাংকের বড় মক্কেলদের ও প্রাতিষ্ঠানিক মক্কেলদের আমানত ও ঋণ ব্যবহারের প্রতি উদাসীনতা ও সতর্কতা দৃষ্টির অভাব- Indifference and lack of close observation of the deposits and loan behaviour of the prime customers and Institutional customers”

অনেক ব্যাংকে তথা শাখায় অল্প সংখ্যক কিন্তু বড় বড় অংকের উঁচু মানের নাম করা আমানতকারী ও ঋণগ্রহীতা মাত্র কয়েক মকেল ও প্রতিষ্ঠান। এই গুরুত্বপূর্ণ মক্কেলদের আমানত রাখা ও টাকা উত্তোলনের তথা ঋণ আবেদন আসার এবং ঋণ পরিশোধের পূর্বাভাস যত আগে আঁচ করা সম্ভব ততবেশী দক্ষ ও নিখুঁত ভাবে তারল্য ব্যবস্থাপনা করা সম্ভব হয়। অতএব অভিজ্ঞ ব্যাংক কর্মকর্তাবৃন্দ প্রতিনিয়ত এদের সাথে সামান্য খোশ গল্প করে পরোক্ষভাবে তাদের ব্যবসার ভাবি আমানত, উত্তোলন চাহিদা ইত্যাদি জেনে নিয়ে প্রয়োজনীয় তারল্য ব্যবস্থা করে রাখে। অনুরূপ ভাবে এ সকল প্রধান মক্কেলদের আগাম চাহিদা ও ঋণ পরিশোধের অবস্থা- ও জেনে নিয়ে ব্যবস্থাপনা আয়ত্বে রাখা সক্ষম হয়।

(ঙ) অদক্ষ কাউন্টার সেবা (Inefficient Counter Service ) :

কাউন্টার সেবা দক্ষ ও চৌকস সহযোগিতার মনোভাবাপন্ন মিষ্টভাষী ব্যক্তি বর্গ দ্বারা পরিশোধিত হলে মক্কেলগণ বিশেষ করে টাকা উত্তোলনকারীগণ বা পরিশোধ প্রাপকগণ ধৈর্য্য ধরে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে আপত্তি করেন না এবং টাকা পাওয়া যায়নি এরূপ সম্পর্কিত সমস্যার ব্যাপারে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছেও কোন অভিযোগ উত্থাপিত হয় না। এবং জনসমক্ষেও ব্যাংকের তারল্য তথা পরিশোধ ত্রুটি বা বিলম্বজনিত কোন রূপ দুর্নাম রটে না। অদক্ষ কাউন্টার সেবার ক্ষেত্রে উল্টো ফলাফল সংঘটিত হয়।

তারল্য সংকট আয়ত্বে রাখা [ Handling Bank Liquidity Crisis ]

(চ) ব্যাংকের মর্যাদা স্তর বিন্যাসকারী সংস্থার সংগে যোগাযোগ রাখা – Maintain Linkage with the Bank Rating Agencies:

সরকারী ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ ও বেসরকারী ব্যাংকের মর্যাদা শ্রেণী বিন্যাসকারী ও তথ্য বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানসমূহ দেশে কার্যরত ব্যাংক সমূহের প্রয়োজনীয় তথ্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ উৎস থেকে সংগ্রহ করে তারল্যসহ ব্যাংকের অন্যবিধ কার্যক্রম সম্পর্কে অত্যন্ত উঁচু মানের পেশাদারী বিশ্লেষণ ও মূল্যায়ন করে থাকে। এ সকল সংস্থা সমূহের সাথে নিয়মিত সুসম্পর্ক বজায় রাখলে ব্যাংক নিজের অন্যবিধ সমস্যা সহ তারল্য অবস্থা সম্পর্কে সঠিক বিশ্লেষণ ধর্মী পরামর্শ সংগ্রহ করতে পারে। এরূপ সংগৃহীত তথ্য ও পরামর্শের ভিত্তিতে তারল্য সংকট পরিহার করা বা পতিত তারল্য সংকট থেকে উত্তরণ সহজতর ও কুশলী হওয়া স্বাভাবিক।

(ছ) মুদ্রা বাজারে প্রভাব বৃদ্ধি করণ Increase Influence in the Money Market :

শত সতর্কতা অবলম্বন সত্বেও অনেক ব্যাংককেই অনিশ্চয়তার কারণে তারল্য সংকটে কমবেশী পড়তে হয়। এরূপ সংকট উত্তরণের জন্য আগে ভাগেই মুদ্রা বাজার তথা আর্থিক বাজার স্বল্প মেয়াদী ঋণপত্র অথবা আর্থিক বাজার স্বল্প মেয়াদী ঋণপত্র অথবা আন্ত: ব্যাংক ঋণে সুযোগ করে দিতে হয়। তাহলে তারল্য সংকট সম্ভাবনা থাকলে প্রয়োজনে তহবিল সংগ্রহ করে সংকট উত্তোরণ করা সম্ভব। যে ব্যাংক এরূপ দায় বিক্রি করে তহবিল উত্তোলন যতবেশী বিশ্বাস নিবিড়তা, বিস্তৃতি ও স্থিতিশীলতার সংগে লেনদেন করবে, সে ব্যাংকের পক্ষ্যে তারল্য সংকট পরিহার করা ও ততবেশী সহজতর ও নির্ভরযোগ্য হবে।

(জ) ঋণ আদায় ও ঋণ রূপান্তর কার্যক্রম দক্ষতা উন্নয়ন Enhancing the Skill of Loan Recovery and Loan Securitisation :

ঋণ আদায় সঠিক সময় ও সঠিক পরিমাণে না হলে তারল্য সংকট হওয়া অবশ্যম্ভাবী। অপরপক্ষে প্রদত্ত ঋণ প্রয়োজনবোধে ঋণপত্রে রূপান্তর করে নগদানে নগদ অর্থে বাজারে বিক্রয় করা তারল্য নিশ্চিত কৌশল ইসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। অতএব, ঋণ আদায়ে দক্ষ কার্যক্রম পরিকল্পিত ভাবে প্রয়োগ করে এবং ঋণ রূপান্তরে সুযোগ-সুবিধা পূর্বাহ্নে ঠিক রেখে তারল্য সংকট পরিহার সম্ভব।

আরও পড়ুনঃ

মন্তব্য করুন