ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনাঃ ব্যাংক নগদ অর্থের ব্যবসায় নিয়োজিত একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান। যে অর্থ বা নগদান নিয়ে ব্যাংকের কার্যক্রম তা মূলতঃ মালিকদের নয়। বরং সিংহভাগ আসে আমানতকারীদের অর্থ থেকে। সাধারণতঃ ব্যাংকের মালিকদের নিজস্ব পুঁজি মোট তহবিলের শতকরা ৪ ভাগের বেশী হয় না। সুতরাং অপরের গচ্ছিত ধার করা অর্থই ব্যাংক ব্যবসায়ের মূল চালিকা শক্তি। অপর থেকে সংগৃহীত নগদান ব্যয়হীন নহে বরং লেনদেন খরচ ছাড়াও আমানতের উপর প্রদত্ত সুদ খরচ ব্যাংকের তহবিলের মূল্য বিশেষ। এরূপ মূল্য প্রদান করে সংগৃহীত অর্থ অলসভাবে ফেলে রাখা অব্যবসায়ী মূলত। অপরপক্ষে অতিরিক্ত ব্যবসায়ী মনা হয়ে নগদান অর্থ ব্যবহার করলে তারল্য সংকট হওয়া বিচিত্র নয়। এদ্বন্দ তথ্য সংকট উত্তোরনের লক্ষ্যেই প্রয়োজন সুষ্ঠু নগদান ব্যবস্থাপনা।

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনার কার্যাবলী Function of Day-to-day Manager of Bank Cash :

নিম্নে দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনার কার্যাবলী দেয়া গেল :

(ক) নগদান আন্তঃ প্রবাহ পরিকল্পিত ভাবে চলমান রাখা ।

(খ) নগদান বহিঃ প্রবাহ অগ্রীম না করে পরিকল্পিত ভাবে যথা সময়ে পরিশোধ ধারা অব্যাহত রাখা।

(গ) ব্যাংকের নগদান জের বিপদস্তরে যাওয়ার পূর্বেই ন্যূনতম স্তরে সংরক্ষণ করা।

(ঘ) নগদান বিপদ স্তরে পৌঁছার পূর্বেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক রিজার্ভ থেকে ঘাটতি পূরণ করা।

(ঙ) নগদান প্রয়োজনাতিরিক্ত স্তরে পৌঁছা মাত্রই উদ্বৃত নগদান উপার্জনক্ষম বিনিয়োগ বা ন্যূনপক্ষে রিজার্ভ

নিম্নে দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনার প্রক্রিয়াটি দেখানো গেল

১. ন্যূনতম নগদান স্তর

২.নগদান আন্তঃপ্রবাহ

৩.নগদান বহিঃপ্রবাহ

৪. অতিরিক্ত নগদান

৫রিজার্ভ,অন্যান্য ব্যাংক হিসাব,বিনিয়োগ

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

উল্লেখ্য যে অন্য ব্যবসায়ের দৈনদিন নগদান ব্যবস্থাপনা ব্যাংকের জন্য অতিশয় জটিল। কারণ কে, কখন, কত টাকার উত্তোলন আদেশ অর্থাৎ চেক আমানতকারী নিজে অথবা নিকাশ ঘরের মাধ্যমে উত্তোলনের জন্য আদেশ করে এ ব্যাপারে ব্যাংক ব্যবস্থাপকদের জানা থাকে না এবং অদ্যাবধি পৃথিবীর কোথাও আগাম জানার কোন কৌশল আবিষ্কার হয়নি। অধিকন্তু কে, কখন, কত টাকার আমানত হিসাবে জমা রাখবে এবং নিকাশ ঘরে আদায়ের জন্য পাঠানো চেক আদৌ সংগৃহীত হবে কীনা এ ব্যাপারেও ব্যাংক ব্যবস্থাপকদের জানা থাকে না। এটিও অদ্যবধি পৃথিবীর কোথাও আগাম জানার কোন কৌশল আবিস্কার হয়নি।

মেয়াদী আমানতের পূর্ণতা সম্পর্কে ব্যাংকের তথ্য রয়েছে, কিন্তু এ ব্যাপারেও অনেক মেয়াদী আমানতকারীগণ মেয়াদ পূর্ণের আগেই অর্থ উত্তোলনের আবেদন জানাতে পারে। এবং সে আগাম আবেদন পূরণ না করার নজির কোন ব্যাংকের নেই। ব্যাংক কর্তৃক ক্রীত মেয়াদী বিনিয়োগ করে মেয়াদপূর্ণ হবে এ ব্যাপারে ব্যাংকের তথ্য রয়েছে। ব্যাংকের ইচ্ছার উপরে এই একটি ব্যাপারে মেয়াদ পূর্ণকালীণ পর্যন্ত ব্যাংক নিশ্চিত ভাবে অপেক্ষা করতে পারে। আলোচ্য বিশ্লেষন থেকে বোঝা যায় ব্যাংক ব্যবসায়ের অবদান আগমন ও নির্গমনে অনিশ্চয়তার নিবিড়তা নিশ্চিত স্তরের চেয়ে অনেক গুণ বেশী। অতএব অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে নির্দিষ্ট খাতের উপাত্ত সমূহের ন্যূনপক্ষে কয়েক মাসের চলমান গড়ের ভিত্তিতে পূর্বাভাস নিয়ে নগদান ব্যবস্থাপনা অতি সন্তর্পণে পরিচালনা করা ব্যাংক ব্যবস্থাপনার একটি বিরাট চ্যালেঞ্জ বিশেষ।

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

নগদান ব্যবস্থাপনার মূল সম্পদ হিসাব সমূহ Basic Asset Accounts of Cash Management : নগদান বলতে সাধারণত ব্যাংকে বিদ্যমান নগদ অর্থকে বুঝায়। এরূপ নগদ অর্থ শাখা পর্যায়ে থাকতে পারে। যথা : (ক) কাগজী নোট সমূহ ও (খ) ধাতব মুদ্রা সমূহ। কিন্তু নগদান ব্যবস্থাপনা আরও বিস্তৃত পরিসরের। বিস্তৃত দৃষ্টি ভঙ্গিতে নগদান ব্যবস্থাপনায় যে সব সম্পদ হিসেব করে দেখা হয়ে থাকে তা সাধারণত চারটি। নিম্নে এগুলো দেখা যেতে পারে।

(১) ব্যাংকের সিন্ধুকে বা কোষাগারে থাকা নগদান সমূহ : Currency and coin in the Bank’s Vault

(২) কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে প্রাপ্য : Due from the central bank

(৩) বাণিজ্যিক ব্যাংক সমূহ থেকে প্রাপ্য : Due from other commercial Bank s

(৪) সংগ্রহ প্রক্রিয়ায় থাকা নগদান সমূহ : Cash item in the process of collection উল্লেখিত নগদান সম্পত্তি সমূহ নিম্নে সংক্ষেপে আলোচনা করা গেল :

(১) ব্যাংকের সিন্ধুক বা কোষাগারে থাকা নগদান সমূহ Currency loan and coin in the Bank Vault :

ব্যাংকের কাগজী নোট সমূহ ও মুদ্রা সকল আলাদা ভাবে গুনে সংখ্যা ভিত্তিক প্যাকেট করতে হয়। নত জমাকৃত এরূপ নগদানকেও তদ্রূপ প্যাকেট অনুযায়ী রেখে বিবরণীতে নোট করতে হয়। পরিশোধের কোন অংকের কতটি নোট অথবা মুদ্রা পরিশোধ করা হল তা লিখে দিনের শেষে জের বাহির করতে হয়। নগদান গ্রহণ ও পরিশোধ কালে ঘাটতি হলে প্রধান অফিস, এলাকার অন্যান্য শাখা অথবা কেন্দ্রীয় বার থেকে সাময়িক ধার নিয়ে তা মেটানোর উদ্যোগ নিতে হয়। অপর পক্ষে লেনদেন প্রক্রিয়ার নগদান উদ্বৃত্ত হা হেড অফিস বা পার্শ্বের ব্যাংকে জমা অথবা কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জমা করে রাখতে হয়।

(২) কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে প্রাপ্য -Due from the central Bank:

কেন্দ্রীয় ব্যাংক ধার গ্রহণ ছাড়াও নানা রকম সরকারী বন্ড বা ঋণ পত্র বিক্রি করে নগদান সৃষ্টি সম্ভব। অন পক্ষে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে নতুন ভাবে ট্রেজারী বিল ও বন্ড ক্রয় করে লেনদেন করাও সম্ভব। এছাড় কেন্দ্রীয় ব্যাংকে থাকা রিজার্ভ হিসাব থেকে উত্তোলন ও রিজার্ভ হিসাবে নতুন জমাকরণ ইত্যাদি সতর্ক ভাবে লিপিবদ্ধ করে দৈনিক সর্বমোট পরিমাণ নির্ণয় করা এরূপ সম্পত্তি ব্যবস্থাপনার অংশমাত্র।

(৩) বাণিজ্যিক ব্যাংক সমূহ থেকে প্রাপ্য-Due from the other commercial Banks

পারস্পরিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতিও একই এলাকায় কার্যরত ব্যাংক সমূহ একে অপরের ব্যাংকে আমানত, বিশেষ করে চলতি আমানত রেখে থাকে। এছাড়াও প্রতিনিধি ব্যাংকে (Correspending Bank) এরূপ আমানত রাখা ও এমনকি রিজার্ভের অংশ বিশেষ আমানত হিসেবে রাখা বিচিত্র নয়। এরূপ ব্যাংক সমূহে আমানত জমাকরণ ও হিসাব সমূহ হতে প্রয়োজনে টাকা উত্তোলন সর্তকতার সহিত পরিচালনা ও নধিবদ্ধ করে দিনের লেনদেন শেষে বিবরণীর মাধ্যমে জের নির্ণয় করা এরূপ নগদান ব্যবস্থাপনার বিষয় বস্তু।

ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]

 

(৪) সংগ্রহ প্রক্রিয়ায় থাকা নগদানসমূহ – Cash item in the process of collection

সাধারণ পক্ষে গৃহীত চেক সমূহ সংগ্রহের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিকাশ ঘরে পাঠানো হয়ে থাকে। প্রতিদিন ব্যাংকের গৃহীত চেক সমূহ নিকাশ ঘরে প্রাপক হিসাবের বিপরীতে জমাযোগ্য দেখিয়ে সংগ্রহ করার নির্মিত্তে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিকাশ ঘরে জমা দেয়া হয়। প্রতিদিন নিকাশ ঘরের বৈঠক শেষে প্রাপ্ত নগদান সমূহ সংগ্রহকারী ব্যাংকের নামে ক্রেডিট করা হয়। ক্রেডিট শেষে যে যে চেকের টাকা সংগ্রহীত হয়েছে তা পরদিন মর্কেলের নির্দিষ্ট সংখ্যার হিসাবে ক্রেডিট করা হয়ে থাকে। উল্লেখ্য যে, অমর্যাদা প্রান্ত বা ফেরৎ আসা চেক সমূহ সংগৃহীত হয়নি তথ্যটি নির্দিষ্ট গ্রাহককে অবহিত করা আবশ্যক।

উপসংহার [ Conclusion ]

তারল্য ব্যাংক ব্যবসায়ের মূল কৌশল যার সফল প্রয়োগ ঋণযোগ্য তহবিল নির্দেশক। দক্ষ তারল্য ব্যবস্থাপনা সহায়তা করে। ত্রুটিপূর্ণ তারল্য ব্যবস্থাপনা অসন্তুষ্ট মর্কেল সৃষ্টি করে ব্যাংকের লোকসানের কারণ হতে পারে। অপরপক্ষে ব্যাংক নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ ত্রুটিপূর্ণ তারল্য সংরক্ষনের জন্য একটি ব্যাংকের প্রতি শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করলে বাজার অর্থনীতিতে ঐ ব্যাংকের সুনাম, প্রভুত ভাবে ক্ষুন্ন হয়।

আরও পড়ুনঃ

“ব্যাংকের দৈনন্দিন নগদান ব্যবস্থাপনা [ Management of Day-to-day Cash in Bank ]”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন