ব্যাংকের পরিবেশ পাঠের প্রয়োজনীয়তা [ Need For Study of Environment of Banking ]

ব্যাংকের পরিবেশ পাঠের প্রয়োজনীয়তা [ Need For Study of Environment of Banking ] : একথা অনস্বীকার্য যে, সমস্ত আর্থ-সামাজিক কর্মকান্ডই পরিবেশ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। পরিবেশের প্রভাবকে অস্বীকার করে কোন উদ্যোগেই সফলতা অর্জন করা সম্ভব নয়। ব্যাংকিং বিষয়ে আগ্রহী একজন পাঠককে এবং ব্যাংক ব্যবসায়ের উদ্যোক্তা, পরিচালক তথা একজন ব্যাংকারকে অবশ্যই গুরুত্বসহ ব্যাংক ব্যবসায়ের পরিবেশ ও এর উপাদান সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান অর্জন করতে হবে। কি ধরনের অর্থনৈতিক অবকাঠামোর উপর ভিত্তি করে ব্যাংকিং ব্যবসায় গড়ে তোলা যায়, কি ধরনের সিদ্ধান্ত ব্যাংক ব্যবসায়ের সফলতা ও ব্যর্থতার নির্ণায়ক হিসেবে কাজ করে থাকে, এ সব বিষয়ে বিশদ ধারণা অর্জন করতে হলে ব্যাংক ব্যবসায়ের পরিবেশ পাঠের গুরুত্ব অপরিসীম।

ব্যাংকের পরিবেশ পাঠের প্রয়োজনীয়তা [ Need For Study of Environment of Banking ] Banking, Money [ Free Image from https://pixabay.com ]

 

যে সব বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কারণে একজন ব্যাংকারকে এবং ব্যাংকিং ব্যবসায়ে সম্পৃক্ত কোন ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের পরিবেশ পাঠ করা অত্যাবশ্যক, তা নিম্নে সংক্ষেপে ৫টি অংশে আলোচনা করা হলোঃ

ব্যাংকের পরিবেশ পাঠের প্রয়োজনীয়তা:

১. অর্থের চাহিদার তারতম্য [ Variations in Demand for Money ]:

ব্যাংকের কারবারই অর্থ নিয়ে, এটা আমানতের মাধ্যমে জনগণের অর্থ সংগ্রহ করে অন্যকে ধার দেয় এবং সেখান থেকে মুনাফা অর্জন করে। সুতরাং, সম্ভাব্য লোকদের নিকট হতে যদি অর্থের চাহিদা কমে যায় তা হলে ব্যাংকের নিকট আমানত হিসেবে গচ্ছিত অর্থ অলসভাবে পড়ে থাকার সম্ভাবনা আছে, যা ব্যাংকের কেবল খরচই বৃদ্ধি করবে, কিন্তু কোন মুনাফা দিবে না।

আবার অর্থের চাহিদা কখনও যদি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পায় তা হলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাংকের পক্ষে সে চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নাও হতে পারে। অর্থাৎ উভয় দিক হতেই অর্থের চাহিদার তারতম্য পূর্বাহে আঁচ করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে না পারা ক্ষতিকারক। সুতরাং এ বিষয়ে ধারণা অর্জন করতে হবে। পরিবেশ সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান অর্জন করতে হবে এবং এর জন্য প্রয়োজন পরিবেশের পর্যবেক্ষণ এবং এর পরিবর্তনের দিক চিহ্নিত করে কারবার নীতিতে প্রয়োজনীয় সমন্বয় সাধন।

 

India, Bank, Currency, Money, Free Photo from Pixabay.com

 

২. ঋণের চাহিদার তারতম্য [ Variations in Credit Demand ]:

ঋণের চাহিদা বিভিন্ন ধরনের এবং বিভিন্ন মেয়াদের। একই কাজের জন্য সকল ধরনের ঋণের চাহিদা সৃষ্টি করা হয় না। যেমনঃ চলতি প্রয়োজন মেটাবার জন্যে স্বল্পমেয়াদী ঋণ এবং স্থায়ী কোন প্রয়োজন মেটাবার জন্য সাধারণতঃ দীর্ঘ মেয়াদী ঋণের চাহিদা সৃষ্টি হয়। ঋণের চাহিদার পরিমাণ সকল সময় একরূপ থাকে না। যে কারণে এর পরিবর্তন ঘটে সেগুলো পরিবেশের কতিপয় উপাদান। এদের প্রতি নিবিড় পর্যবেক্ষণ রাখলে বাড়তি চাহিদা পূরণের জন্য সেরূপ চাহিদা হ্রাস পেলে উদ্বৃত্ত তহবিল অন্যত্র ব্যবহার করার জন্য সময়মত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব। সুতরাং কোন অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে কি ধরনের ঋণের চাহিদা বাড়তে বা কমতে পারে তা জেনে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করার জন্য পরিবেশ পাঠ করা প্রয়োজন।

 

Management, Conference Room, Meeting, Free Image from Pixabay.com

 

৩. তহবিল সরবরাহের তারতম্য [ Variations in funds Supply ]:

ব্যাংকের তহবিলের সবচেয়ে বড় উৎস হলো জনগণের সঞ্চয় এবং ব্যতিক্রম হিসেবে বিশেষ পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক আর্থিক সহায়তা দিয়ে থাকে। সুতরাং কখন, কি পরিমাণে এবং কেন সঞ্চয় বাড়তে পারে বা কমতে পারে এবং কি কি কারণে এবং কি পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংকের হাতে তহবিলের সরবরাহ কমাবার নীতি গ্রহণ করতে পারে এ ব্যাপারে বিশেষ ধারণা অর্জন করার জন্য ব্যাংক ব্যবসায়ের পরিবেশ পাঠ করা অত্যাবশ্যক। তহবিল অব্যবহৃত থাকলে ব্যাংকের লাভ কম হয়; অপরপক্ষে তহবিলে ঘাটতি দেখা দিলে সুনাম নষ্ট হয়। অতএব, নিবিড়ভাবে ব্যাংক পরিবেশ অধ্যয়ন করলে এবং পূর্বাহ্নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারলে তহবিল সরবরাহের তারতম্যের অশুভ প্রতিক্রিয়া সময়মত নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

 

Japanese-Yen-Bank-Money-Free-Image-From-Pixabay.com

 

৪. সুদের হারের পরিবর্তনশীলতা [ Variations in Interest Rates ]:

ঘন ঘন সুদের হারের পরিবর্তনশীলতা ব্যাংক ব্যবসায়ের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব সৃষ্টি করে থাকে। সুদের হার বৃদ্ধি পেলে ঋণের চাহিদা কমে যেতে পারে, যা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে ব্যাংক ব্যবসাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে থাকে। অপরপক্ষে আমানতের উপর সুদের হার কমে গেলে তহবিল হ্রাস পাবে এবং সুদের হার বাড়লে হঠাৎ করে বেড়েও যেতে পারে। কখন কি কারণে সুদের হারের পরিবর্তন হয়ে থাকে তা পর্যবেক্ষণ করা উচিত এবং পরিবর্তনের দিক চিহ্নিত করে আগেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিলে অশুভ প্রতিক্রিয়া কমানো সম্ভব। সুতরাং সুদের হার পরিবর্তন নির্ণায়ক বিষয়ে ধারণা লাভ করার জন্য ব্যাংক ব্যবসায়ের পরিবেশ পাঠ করা একান্ত অত্যাবশ্যক।

 

Frankfurt, Germany, Free Photo from Pixabay

 

৫. ঋণের শর্তাবলীর তারতম্য [ Variations in Credit Condition ]:

পরিবেশ পরিবর্তিত হলেই ক্ষণের শর্তাদি পরিবর্তন করবার প্রয়োজন হতে পারে। সুতরাং কি পরিস্থিতিতে ঋণ সরবরাহের ক্ষেত্রে কি শর্তাদি আরোপ করা যেতে পারে বা কি কি শর্তানি প্রত্যাহার করা যেতে পারে ইত্যাদি সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করবার জন্য ব্যাংক ব্যবসায়ের পরিবেশ পাঠ করা আবশ্যক।

মোদ্দা কথায়, ব্যাংকার তথা ব্যাংক ব্যবসায়ের সাথে সম্পৃক্ত লোকজনকে এ কারবারের সফলতার নির্ণায়ক ও ব্যর্থতার কারণ উপলব্ধি করতে হলে এ ধরনের কারবারের পরিবেশ সম্পর্কে সঠিক পর্যবেক্ষণ, অনুধাবন ও বিশ্লেষণ করে সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। মনে রাখতে হবে, পরিবেশ যেমন- ব্যাংকের কার্যক্রমকে প্রভাবিত করে থাকে তেমনি ব্যাংক দ্বারা গৃহীত দূরদর্শী পদক্ষেপসমূহও পরিবেশকে অনেক সময় আংশিক হলেও নিয়ন্ত্রন করতে পারে। তাই পরিশেষে বলা যায় পরিবেশ অধ্যয়ণ ও পর্যবেক্ষণ ব্যাংকের জন্য অত্যাবশ্যকীয় ও লাভজ্জনক।

আরও দেখুন:

বাংলাদেশের ব্যাংক ব্যবস্থা [ Banking System in Bangladesh ]

আইএমএফর কাছে বেলআউট চাওয়া হয়নি : মুখ্যসচিব

“ব্যাংকের পরিবেশ পাঠের প্রয়োজনীয়তা [ Need For Study of Environment of Banking ]”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন