পরিচালনা পর্ষদের সাথে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ক [ Relationship between Board of Directors and Bank Management ]

পরিচালনা পর্ষদের সাথে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ক [ Relationship between Board of Directors and Bank Management ] : শেয়ার হোল্ডারগণ ব্যাংকের মালিক কিন্তু তারা প্রত্যক্ষভাবে ব্যাংক পরিচালনা করে না। পরিচালনা পর্যন গঠনের মাধ্যমে তারা এ দায়িত্ব পালন করেন। অপর পক্ষে দৈনন্দিনের বিস্তারিত ব্যাংক ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমে পরিচালনা পর্ষদ অংশগ্রহণ করেন না। পর্ষদ সদস্যগণকে বলা মাত্র ব্যাংকের নীতি নির্ধারণ ও কৌশল বিনির্মাণ করে ব্যবস্থাপনাকে সর্বোত্তম দক্ষতা সহকারে ব্যাংক কার্য নির্বাহ করতে দেন।

ব্যাংকের শেয়ার মালিক বৃদ্ধ, পরিচালনা পর্ষদ, পর্যন চেয়ারম্যান, প্রধান নির্বাহী / ব্যবস্থাপনা পরিচালক/ নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ও ব্যাংক ব্যবস্থাপনা- মধ্যের সম্পর্ক নিচের চিত্রটির মাধ্যমে দেখা যেতে পারে :

পরিচালনা পর্ষদের সাথে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ক [ Relationship between Board of Directors and Bank Management ]

পরিচালনা পর্ষদ যদিও ব্যাংকে দক্ষ কার্যক্রম ও ভাল মুনাফা অর্জনের জন্য শেয়ার হোল্ডারদের নিকট থেকে অধিক প্রশংসা পেয়ে থাকেন কিন্তু সত্যিকার ব্যাংক কার্যক্রম পরিচালনা তারা করেন না। তারা কেবল ব্যবস্থাপনা কর্মী বাহিনী নিয়োগ সম্পাদন করে থাকেন। অপর পক্ষে, অসন্তোষজনক ব্যাংক কর্মকান্ডের জন্য পর্যন্ত সদস্যগণকে প্রায়ই শেয়ার হোল্ডারদের দ্বারা তিরস্কৃত হতে দেখা যায়। যদিও মদ ক্রিয়াকাণ্ডের জন্য অদক্ষ ব্যবস্থাপনা বহুলাংশে দায়ী।

[ পরিচালনা পর্ষদের সাথে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ক
[ Relationship between Board of Directors and Bank Management ] ]

উল্লেখ্য যে, ব্যবস্থাপনা উন্নয়নসহ, দক্ষ ও প্রগতিশীল কর্মীবাহিনী গঠনে পরিচালনা পর্ষদের দায়িত্ব রয়েছে। পর্যদ অভিজ্ঞ ও চৌকষ উৎবর্তন ব্যাংক কর্মকর্তা নিয়োগ করে সঠিক ও সুস্পষ্ট কর্মপন্থা ও কর্মকৌশলের মাধ্যমে মানসম্পন্ন দক্ষ কার্যক্রম সম্পাদনে ব্যবস্থাপনাকে আগ্রহী করে তুলতে পারেন। এতদভিন্ন, উপযুক্ত সাংগঠনিক ব্যবস্থাপনা সাংগঠনিক কাঠামো সুস্পষ্ট কর্তৃত্ব ও দায়িত্ব প্রবাহ নিশ্চিত করে পরিচালক কমিটি সমূহের মাধ্যমে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও সর্বোত্তম লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যবস্থাপনাকে সাহায্য করতে পারেন।

ব্যাংকের আন্তঃ ও বহিঃ যোগাযোগ ব্যবস্থা, কর্মী প্রেষনা, কর্মী মনোবল, কর্মীদের অভাব অভিযোগ পর্যালোচনা করে ব্যাংকের অভ্যন্তরে অনুকুল কার্য পরিবেশ সৃষ্টি করার দায়িত্ব প্রাথমিক ভাবে ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর। শর্তব্য যে, ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী প্রায়শঃই পর্ষদ সভার একজন সদস্য হয়ে থাকেন। কিন্তু তা না হলে প্রধান নির্বাহী ব্যাংক ব্যবস্থাপনার প্রধান হিসাবে এ সকলের জন্য দায় দায়িত্ব বহন করবেন।

যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার নিরিখে ঠিক কর্মকর্তাকে তার জন্য উপযুক্ত কর্ম দেওয়া হয়েছে কিনা তা দেখা যা নির্বাহীরই দায়িত্ব। এতদভিন্ন ট্রেনিং, পদোন্নতি, বদলী ইত্যাদি সঠিক নিয়ম নীতির ভিত্তিতে হয়েছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করা প্রধান নির্বাহীরই দায়িত্ব।

Bangladesh Bank

অতএব লক্ষ্যনীয় যে, ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনা পর্ষদ একটি অপরটির থেকে পৃথক হলেও একে অপরের সংগে সম্পর্কযুক্ত। নীতি ও কৌশল প্রণয়নে একটি থাকলে যথেষ্ট আন্তরিকতা সত্ত্বেও ব্যবস্থাপনা উচ্চ ফলাফল লাভে সক্ষম নাও হতে পারে। অপরপক্ষে সঠিক ব্যবস্থাপনা কার্যমূল্যায়ন করে সন্তোষজনক কার্য সম্পাদনের জন্য উপযুক্ত ব্যক্তিকে পুরস্কৃত করলে এবং কমিটির মাধ্যমে পরোক্ষ পরামর্শ ও নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখলে ব্যবস্থাপনা উচ্চ লক্ষ্য অর্জনে সম্ভবপর হবে বলে বিশ্বাস।

প্রতিদিন ব্যাংকিং আরও জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। সেই সাথে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে স্টেকহোল্ডারদের সাথে সম্পর্কের রসায়ন। ব্যাংকের সকল স্টেক হোল্ডারের সমন্বিত ব্যবস্থাপনা যেমন ব্যাংক কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে, সমন্বয়হীনতা তেমনই পিছিয়ে দিতে পারে।

 

 

আরও দেখুন:

“পরিচালনা পর্ষদের সাথে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ক [ Relationship between Board of Directors and Bank Management ]”-এ 2-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন