ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলী [ Functions as Users of Bank Funds ]

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলীঃব্যাংক আমানত, যার ৩ পুঁজি সহ কয়েক প্রকার উৎস থেকে তহবিল সংগ্রহ করে থাকে। এরূপ সংগৃহীত তহবিলের বেশীর ভাগই সুখ বা মুনাফা অর্জনে সক্ষম। বিথার ঋণ ও বিনিয়োগ হয়ে থাকে। আয় বর্ধনকারী সম্পত্তিতে বিনিয়োগ করার পূর্বে প্রতিটি ব্যাংককেই বিভিন্ন অনুপাতের হলেও দৈনন্দিন তারল্য রক্ষার জন্য নগদ টাকা বা স্বল্প সময়ে নগদ টাকায় রূপান্তর যোগ্য সম্পত্তিতে তহবিলের একটি অংশ তারল্য প্রয়োজনে ব্যবহার করতে হয়। তারল্য উদ্রেক সম্পদ সাধারণত ব্যাংকের উপার্জনে তেমন কোন অবদান রাখে না। এরুপ সম্পদ থেকে প্রধান লক্ষ্য হল ব্যাংকের দৈনন্দিন তারল্য ব্যবস্থা করা।প্রায়শ ব্যাংকিং ব্যবসায় নিয়ন্ত্রনকারী কর্তৃপক্ষ তারল্য রক্ষার জন্য মোট তহবিলের বিশেষ করে আমানতের একটা অংশ বিধিবদ্ধ রিজার্ভ আকারে রাখার বাধ্যতামূলক বন্দোবস্ত করে থাকে।

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলী [ Functions as Users of Bank Funds ]

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলী [ Functions as Users of Bank Funds ]

যাহোক, বাণিজ্যিক ব্যাংক সমূহ সাধারণত যে যেভাবে তাদের তহবিল ব্যবহারকারী কার্য সম্পাদন থাকে তা সাধারণত চার রকম যথা-

ক) ঋন প্রদান কার্যক্রম Lending Function
খ) বিনিয়োগ কার্যক্রম Investment Function
গ) নগদান সম্পত্তি কার্যক্রম : Cash Assets Function
ঘ) অন্যান্য কার্যক্রম : Other Function

ক) ঋন প্রদান কার্যক্রম Lending Function :

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারের সর্বোচ্চ পরিমাণ অর্থ প্রধানের মাধ্যমে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। গবেষনা থেকে দেখা গেছে উন্নত দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো শর ৫০ ভাগ থেকে ৬৫ ভাগ এবং উন্নয়নশীল দেশ সমূহে ৬৫ থেকে ৭৫ ভাগ সংগৃহীত তহবিল ঘন কার্যক্রমের মাধ্যমে ব্যবহার করে থাকে। ব্যাংকের ঋণ কার্যক্রমকে সাধারণত কয়েকটি ভাগে ভাগ করা যায় যথা ব্যবসায়ী ঋণ ও অব্যবসায়ী জন। ব্যবসায়ী ঋণ দু’ধরণের যথা শিল্প ও বাণিজ্যিক ঋণ।

অপর আর্থি প্রতিষ্ঠান সমূহকে ঋণ সুবিধা প্রধান করাও এক ধরণের ব্যবসায়ী ঋণ। ব্যক্তিগত ভোগা স্বপ্নের মধ্যে মোটরগাড়ী, ফ্রিজ, টেলিভিশন, বাস করার নিমিত্তে বাড়ী নির্মাণ সহ চিকিৎসা ঋণ ও শিক্ষা ঋণ ও হয়ে পারে। অপরপক্ষে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে বিক্রয় কেন্দ্র ও বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নির্মিত ফ্লাট সমূহ ও এক ধরণের ব্যবসায়ীক ঋণ হিসেবে পরিগণিত হয়ে থাকে। এরূপ ঋন ২০/৩০ বছরের জন্য দীর্ঘমেয়াদী ও হতে পারে। আবার ৫/১০ বছরের মধ্যম মেয়াদের মত হতে পারে এবং কয়েক ঘণ্টার মত স্বল্পমেয়াদীও হতে পারে।

কার্যক্রমে ব্যাংকের প্রধান ব্যবস্থাপকের কাজ হল ঋণ প্রস্তাব বিশ্লেষণ, ঋণ প্রাপ্যতা বিশ্লেষন ঋণ বিতরণ। এগুলো ঋণ কার্যক্রমের গতানুগতিক ধারা। আধুনিক যুগে ঋণ তদারকি ও ঋণ আদায় কার্যক্রম নামে সংক্রান্ত নতুন নতুন ঋণ সম্পৃক্ত কার্যক্রম অতি প্রয়োজনীয় বলে বিবেচিত হচ্ছে। অন্যথায় ঋণ সমূহ সমস্যা গ্রস্ত হয়ে অনাদায়ী হওয়ার আশংকা থাকে।

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলী [ Functions as Users of Bank Funds ]

খ) বিনিয়োগ কার্যক্রম – Investment Functions :

ব্যাংকের তহবিল ব্যবহারের দ্বিতীয় বৃহত্তম খাত হচ্ছে ঋণ পত্ৰ ভিত্তিক বিনিয়োগ। এ সমস্ত সাধারণত খেলাপী ঝুঁকি কর সুবিধা, পরিপক্কতা ও বাজারজাত করণের সুবিধার ভিত্তিতে ঋণপত্রের ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে থাকে। সাধারণত যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় সরকার রাষ্ট্রীয় বা প্রাদেশিক সরকার নগর শহর বা স্থানীয় সরকার ইত্যাদি হতে ইস্যুকৃত ট্রেজারী বিল, ঋণপত্র বন্ড ইত্যাদি সুদ আয় ও তহবিলের প্রাপ্যতার উপরে ভিত্তি করে ক্রয় করা হয়ে থাকে।

উন্নয়নশীল দেশেও এরূপ বিনিয়োগের প্রচলন দেখা যায়। কেন্দ্রীয় সরকার তথা কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্তৃক ইস্যুকৃত এরূপ ঋণপত্রের ঝুঁকি সর্বনিম্ন ও নগদে রূপান্তরিত করা তুলনামূলকভাবে সহজ বিধায় বাণিজ্যিক ব্যাংক সমূহের কাছে এটি খুবই আকর্ষনীয়। ট্রেজারী বিল স্বল্প মেয়াদী, মধ্যমেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদীও হতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারী বিল পরিপকতার মেয়াদ ১ সপ্তাহের কম সময় থেকে ২০ বছরের বেশী সময়ের জন্য হতে দেখা গেছে।

অন্যান্য বন্ড বা সিকিউরিটি ঝুঁকির আশংকা বিবেচনা করে সিকিউরিটির ধরণ বিনিয়োগের জন্য দেখা হয়ে থাকে। যেমন- বার্ষিক উন্নয়ণ পরিকল্পনার ভিত্তিক প্রকল্পের আয় থেকে সিকিউরিটির পায় পরিশোধের অঙ্গীকারের চেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী প্রকল্পের আয় থেকে পরিশোধা পর অপেক্ষাকৃত বেশী অন মাধ্যমিক পুঁজি বাজার থেকে অনেক সময় উন্নতমানের নিয়মিত লভ্যাংশ ঘোষনা করে এমন কি সময় সময় বোনাস শেয়ারও ইস্যু করে থাকে এমন খাদানী কোম্পানীর শেয়ার কিনে ব্যাংক তহবিল বিনিয়োগ করে থাকে।

গ) নগদান সম্পত্তি কার্যক্রম Cash Assets Functions :

নগদান সম্পত্তি কার্যক্রম বলতে ব্যাংক তহবিলের ঐ অংশকে বুঝায় যা বিভিন্ন পর্যায়ে ব্যাংকের তারল্য বজায় রাখার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যে যে নগমান সম্পত্তিতে তহবিলের এ অংশ বিনিয়োজিত হয়ে থাকে তা নিম্নরূপ :

ক) সিন্দুকে রাখা নগদ অর্থ : Cash in Vaul

খ) আদায় প্রক্রিয়ায় থাকা হস্তান্তরযোগ্য ও অন্যান্য দলিল সমূহ Items in the process of collection

গ) কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জমাকৃত জের Balance with the central Bank এবং

ঘ) সমগোত্রীয় ব্যাংকে থাকা জের সমূহঃ Balances with Sister Banks

উপরোক্ত নগদান সম্পত্তিতে থাকা তহবিল সমূহ ব্যাংকের দৈনন্দিন কার্যকলাপ সহজতর করার জন্য এবং পায় পরিশোধের জন্য ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আমানতকারীদের মধ্যে অনেকেই প্রতিদিন ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করার মানসে ব্যাংকে চেক উপস্থান করে থাকে। অঙ্গীকার মত ব্যাংক আমানতকারীর পর্যাপ্ত জের থাকা সাপেক্ষে প্রতিটি চেক পাওয়া মাত্র পরিশোধ করতে বাধ্য। অন্যথায় আমানতকারীদের মধ্যে অবিশ্বাস শু আতংক ছড়িয়ে পড়লে ব্যাংকের বড় ধরণের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এতদভিন্ন মঞ্জুরীকৃত ঋণের কিন্তুি বিতরণের জন্য ব্যাংকে পর্যাপ্ত অর্থ থাকতে হয়। এছাড়াও ব্যাংক দ্বারা ভোগ করা রাষ্ট্রীয় সেবা সমূহ যথাঃ বিদ্যুৎ, গ্যাস, টেলিফোন পানি ও অন্যান্য সেবামূলক বিল পাওয়ামাত্র পরিশোধ না করলে এরূপ সেবা বন্ধ করে দেয়ার সম্ভাবনা থাকে।

উপরোল্লেখিত ব্যাখ্যার নিরিখে দেশের সরকার তথা কেন্দ্রীয় ব্যাংক, বা অন্যান্য নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ বা আমানত বীমা কোম্পানী ইত্যাদি তহবিলের বিশেষ করে আমানতি তহবিলের একটি অংশ নগদান সম্পত্তিতে রাখার উৎসাহ দিয়ে থাকে। এমনকি সময় সময় ব্যাংক সমূহকে বাধ্য করে থাকে।

ব্যাংক তহবিল ব্যবহারকারী কার্যাবলী [ Functions as Users of Bank Funds ]

ঘ) অন্যান্য কার্যক্রম – Other Fucntions :

নতুন ব্যাংকের বেলায় ব্যাংক তহবিলের একটি বড় অংশ দালানকোঠা অফিস আসবাবপত্র, সাজ-সরঞ্জাম সাধারণ যন্ত্রপাতি, প্রযুক্তিগত যন্ত্রপাতি ইত্যাদি আয়োজন করতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এ সমস্ত সুযোগ সুবিধা আয়োজন দক্ষ ব্যাংক সেবা ও গ্রাহক আকর্ষনের জন্য আবশ্যক। বিদ্যমান ব্যাংকগুলোর বেলায়ও পরবর্তী পর্যায়ে বড় অংকের না হলেও উল্লেখিত সম্পত্তি সমূহ প্রতিস্থাপন, রক্ষনা-বেক্ষন বা আধুনিকী করণের জন্য প্রতিবছরই অল্প বিস্তর ব্যাংক তহবিলের একটি অংশ ব্যবহার করতে হয়।

অধিকন্তু তথ্য বিপ্লব প্রযুক্তির এযুগে কোন কোন সময় বৈপ্লবিক আধুনিকায়ন করে গ্রাহক তথা প্রতিযোগী ব্যাংক সমূহকে তাক লাগিয়ে দেয়ার জন্য বড় অংকের তহবিল ব্যবহার করা হতে পারে। দেখা গেছে যে ব্যাংক বা যে সকল ব্যাংক সাহস করে উন্নততর প্রযুক্তি ও দ্রুত বেগে স্বল্পতম সময়ে অপেক্ষাকৃত নিখুঁত গ্রাহক সেবা বিতরণে সক্ষম সে ব্যাংক বা ব্যাংকগুলো দেশীয় বা আন্তর্জাতিক ব্যাংক সেবায় অগ্রগামী।

লক্ষ্য করা যায় প্রাথমিক পর্যায়ে এরূপ ব্যয় বড় অংকের হলেও এর ফলে সেবার মান উন্নত হয়। ফলে বেশী সংখ্যক ও নির্ভরযোগ্য মক্কেলগণ ব্যাংকের প্রতি আকৃষ্ট হন। এতে ব্যাংকের আয় অনেক বেড়ে যায় এবং ব্যয়ের হারের বৃদ্ধির তুলনায় আয়ের হার বৃদ্ধি পায়।

আরও পড়ুনঃ

মন্তব্য করুন