ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ]

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ] অন্য যেকোন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের মত ব্যাংক ব্যবসায়ও নিয়ন্ত্রিত হওয়া আবশ্যক নিয়ন্ত্রণ বর্হিভূত ব্যবসায়ীগণ লাভের আশায় যেকোন কার্যক্রম তা যত গণবিরোধী হোকনা কেন তা করতে দ্বিধা করেনা প্রাগঐতিহাসিক যুগেও ব্যবসায়ীগণকে আত্ম-স্বার্থ সর্বাধীকরণের লক্ষ্যে যে কোন ভোক্তা স্বার্থ বিরোধী নীতি গ্রহন করতে দেখা গেছে। এরূপ অবস্থার উন্নয়নকল্পে খৃষ্টপূর্ব ২১০০ সালে ব্যবিলনের রাজা হাম্মুরাব্বী ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণকল্পে মৃত্যুদন্ডের শাস্তিসহ জনস্বার্থে ৩০০ টি আইনের ধারা ৮ ফুট উঁচু বিস্তারিত দেওয়ালে খোদাই করে রেখেছিলেন।

A thing may look specious in theory,

and yet be ruinous in practice,

a thing may look evil in theory,

and yet be in practice excellent.”

                                       Burke Edmund

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ]

ব্যবসার কার্যক্রমসমূহের মধ্যে ব্যাকিং ব্যবসায় অপেক্ষাকৃত বেশী স্পর্শকাতর। ১৯১৩ সনে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্থাপনের পূর্বে বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের তেমন কোন নিয়ন্ত্রণ ছিলনা বললেই চলে। ব্যাংক মালিকগণের যথেচ্ছ মুনাকাশোরীর কারণে অর্থনীতিে বিশ্ববেলা দেখা দেয় ফলে তিরিশের দশকে বিশ্ব মহামন্দার সময় ফাংসাত্বক প্রতিযোগিতায় হাজার হাজার বাণিজ্যিক ব্যাংক বন্ধ হয়ে যায়। গণতান্ত্রিক যুক্তরাষ্ট্রে গণদাবী উপেক্ষা করা অসম্ভব বিধায় গণস্বার্থ রক্ষা করা বিশেষ করে আমানতকারীদের স্বার্থ রক্ষা করার জন্য তাকে ববসায় নিয়ন্ত্রণের প্রয়োজনীয়তা অনুভূত হয়। অত্র অধ্যায়ে ব্যাকে নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম দুই স্তরে আলোচনা করা হয়েছে * ক. সক্রান্ত সাধারণ আলোচনা খ. বাংলাদেশের বাংক নিয়োগ ব্যবস্থা

ক. ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত সাধারন আলোচনা [ General Discussion on Bank Regulation ]

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ]

ব্যাংক ব্যবসায় নির্ভর করে গণ আস্থার উপর। ব্যাংক জনগণের নিকট থেকে আমানত সংগ্রহ করে এবং তা জনগণের মধ্যে ঋণ হিসেবে প্রদান করে। কিন্তু ব্যাংক যদি জনগণের আমানত ফেরৎ দিতে ব্যর্থ হয় ও জনগণের ঋণের উপর অধিক সুদ ধার্য করে তাহলে উক্ত বাকের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলে। ফলে গোটা ব্যাংকের প্রতি আগ্রহ বিনষ্ট হয় এবং অর্থনীতিতে বিপর্যয় নেমে আসে। কখনও কখনও তা মহামারী বা মহামন্দা আকারে দেখা দেয়।

সুতরাং আর্থিক ও অর্থনৈতিক শৃংখলা বজায় রাখার জন্য ব্যাংকিং ব্যবসায় নিয়ন্ত্রণ অপরিহার্য। ব্যাকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে একটি অর্থনীতির আর্থিক ও এ সংক্রান্ত কার্যাবলী পরিচালিত হয়ে থাকে। একটি দেশের মুদ্রার আভ্যন্তরীণ ও বহিঃ মূল্য সংরক্ষণ নিয়ন্ত্রণ, অর্থসরবরাহ ও ঋণ ব্যবস্থার পরিচালনা ব্যাংকিং কার্যক্রমের মাধ্যমেই সম্পাদিত হয়। জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রধান খাত তথা সঞ্চয় বৃদ্ধি ও প্রবাহ ব্যাংকিং পদ্ধতিতেই সম্পন্ন হয়ে থাকে। ফলশ্রুতিতে জাতীয় অর্থনীতির খাত তথা ব্যাংকিং খাতকে সুব্যবস্থিত ও সুনিয়ন্ত্রিত রাখার প্রক্রিয়া কার্যত: ত্রয়োদশ শতাব্দী হতে চলে আসছে। তবে ব্যাংকিং ব্যবসায় নিয়ন্ত্রণের এ ধারা ষোড়শ, সপ্তদশ ও অষ্টাদশ শতাব্দীতে আরও ব্যাপকতা লাভের মাধ্যমে উনবিংশ শতাব্দীতে এসে পূর্ণতা লাভ করে।

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ]

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ বলতে কি বুঝায় ?[  What is Meant by Bank Regulation? ]

পুরোভাবে ব্যাংক ও ব্যাংকিং নিয়ন্ত্রণ বলতে বুঝায় যে, একটি ব্যাংকের ব্যবসায় পদ্ধতি, পরিচালনা দৈনন্দিন কার্যক্রম এমনভাবে – মানে জনগণকে ব্যাংকিং সেবা প্রদান করবে। ব্যাংকটির বা গোটা বাংকিং ব্যবস্থার উপর জনগণের আস্থা (Public পরিচালিত হবে যাতে আমানতকারীদের স্বার্থ রক্ষিত হবে, ব্যাংকটি অর্থ ও ঋণ ব্যবস্থার সুশৃঙ্খল অবদান রাখবে, দক্ষতা ও উন্নতর Confidence) থাকবে।

ব্যাংক বিশেষজ্ঞগণ ব্যাংকিং নিম্নস্তূপের একাধিক সংজ্ঞা প্রদান করেছেন নিম্নে সেগুলো হতে কয়েকটি উদ্ধৃত হলে :

Grantier (১৯৯০) এর মতে “Banking regulation or supervision is to be seen from its prudential aspects that rules and techniques that aim to protect the depositors through which the protection of soundness of the financal sector or what is generally described as its solvency, liquidity and profitability”

Heller (১৯৯১) এর মতে, ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ হচেছ সংশ্লিষ্ট আইনের যথাযথ প্রয়োগ ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে আমানতকারীদের স্বাধ সংরক্ষণের বিষয়টি নিশ্চিতকরণের জন্য একটি ব্যাংকের কার্যক্রম নিয়মিত পরিদর্শন পর্যবেক্ষণ করা।

হ্যান্ডারসন (১৯৯৩) বলেছেন, “The main focus of Regulation has been to stabilize the financial system agains systemic risks brought on by the failure of individual banks.”

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণের প্রাসঙ্গিকতা [ Relevance of Regulation ]

ব্যাংক অব ইংল্যান্ড এর মতে, (Banking act report 1996/97), “ব্যাংকিং রেগুলেশন ও সুপারভিশনের প্রাথমিক উদ্দেশ হচেছ ব্যাংকগুলোর ঐ সব দায়দায়িত্ব পরিপালন তদারকিকরণ যে গুলো দ্বারা আমানতকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণের বিষয়টি শক্তিশালী হয় এবং এ দ্বারা পুরো ব্যাংকিং ব্যবস্থার শক্তি বৃদ্ধি পায় এবং এর উপর গণ আস্থা ও বৃদ্ধি পায়। ”

ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার উপরোক্ত সংজ্ঞা গুলোর শব্দচরণে ভিন্নতা পরিলক্ষিত হলেও মূল বিষয়ে প্রায় একইরূপ বিবৃতি পরিদৃষ্ট হয়। সুতরা আমরা বলতে পারি যে, ব্যাংক বা ব্যাংকিং নিয়ন্ত্রণ বলতে বুঝায় আমানতকারীদের স্বার্থ রক্ষা নিশ্চিত করা, ব্যাংক ব্যবস্থার উপর অস্ত্রা স্থাপন ও তা বজায় রাখা এবং দেশের আর্থিক খাতকে সুশৃঙ্খল ও শক্তিশালীকরণের জন্য ব্যাংক ও ব্যাকি সংক্রান্ত অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সুব্যবস্থাপনার নিমিত্তে সুনির্দিষ্ট নিয়মকানুন প্রণয়ন করেন। আইনগত রূপদান যেমন ঃ লাইসেন্স প্রদান/ব্যাংক ব্যবসায় অনুমোদন প্রদান, মূলধন, রিজার্ভ ও ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণ এবং এ নিয়মাচারের পরিপালন তদারক ও মনিটরিংকরণ।

আরও পড়ুনঃ

মন্তব্য করুন