কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ দু’ধরনের হতে পারে। যথা : (ক) আভ্যন্তরীণ বিবেচ্য বিষয়সমূহ (খ) বহিঃ বিবেচ্য বিষয় সমূহ।

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

নিম্নে চিত্রে এরূপ নির্ধারক বিষয় সমূহ দেখা যেতে পারে :

আভ্যন্তরীণ নির্ধারক বিষয়

১ ব্যাংকের কার্যান্তর।

২. আমানত কাঠামো।

৩. আমানত হিসাবের আকার।

৪. আমানত হিসাবের মালিকানা।

৫. মাধ্যমিক রিজার্ভের আকার।

৬. কার্যকরী রিজার্ভের সমন্বয়ের ইচ্ছা বা ইতিহাস ।

৭. অন্য ব্যাংকের চলতি আমানত থাকার তারতম্য।

বহিঃ নির্ধারক বিষয়

  • জাতীয় নির্ধারক বিষয় সমুহ
  • আঞ্চলিক নির্ধারক বিষয়সমূহ

জাতীয় নির্ধারক বিষয় সমুহ

১. ধার প্রাপ্যতা ও ধার বায়।

২. জাতীয় ব্যবসায়-বাণিজ্যের অবস্থা ।

৩. নিকাশ ঘর দক্ষতা।

আঞ্চলিক নির্ধারক বিষয়সমূহ

১ ব্যাংকের অবস্থান।

২. মক্কেলদের ব্যাংক মনার তারতম্য।

৩. আঞ্চলিক ব্যবসায় বাণিজ্যের

৪. মৌসুমী চক্রের প্রভাব।

৫. অন্য ব্যাংকের অবস্থান ও তাদের সাথে নিজের ব্যাংকের সম্পর্ক ।

৬. অন্য এলাকার ব্যাংকের কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ।

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

আভ্যন্তরীণ নির্ধারক সমূহ – Internal Factors :

নিম্নে কার্যকরী রিজার্ভের আয়তনের আভ্যন্তরীন নির্ধারক সমূহ সংক্ষেপে আলোচনা করা গেল।

i. ব্যাংকের কার্যস্তর-Level of Bank Operation :

ব্যাংকের কার্যস্তরের তারতম্যের অনুসারে ব্যাংক আমানত মধ্যম বা কম হতে পারে। এরূপ আমানতের পরিমাণ বেশী হলে ও অন্যান্য কার্যকলাপ উঁচু স্তরের হলে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ বেশী হওয়াই স্বাভাবিক। এ ধরণের কার্যমান মধ্যম মান বা নিম্নস্তরের হলে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ কম বেশী হওয়া অবাস্তব নয় ।

ii. আমানত কাঠামো – Structure of Deposits :

আমানত মেয়াদী, চলতি ও সঞ্চয়ী হয়ে থাকে। চলতি আমানতে তথা সঞ্চয়ী আমানতে চলতি আমানতের অংশ যত বেশী হবে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমান ততবেশী প্রয়োজন। মেয়াদী আমানতের জন্য সাধারণত মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পূর্বে নগদান তথা কার্যকরী রিজার্ভের চাহিদা নেই বললেই চলে। তবুও অভিজ্ঞতার আলোকে দেখা যায় হঠাৎ উত্তোলনের জন্য ব্যাংককে তৈরী থাকতে হয়। আর সে জন্য ইতপূর্বে এরূপ উত্তোলনের গতিধারা লক্ষ্য করে কার্যকরী রিজার্ভ রাখতে হয়।

iii. আমানতি হিসাবের আকার – Size of Deposit Account :

আমানতকারীর সংখ্যা বেশী, কিন্তু ছোট ছোট আকারের হলে অল্প সংখ্যক বড় আকারের আমানতের চেয়ে কম কার্যকরী রিজার্ভের প্রয়োজন হয়। iv. আমানতি হিসাবের মালিকানা – Ownership of deposit Accounts : আমানতকারীদের মধ্যে যদি ব্যক্তিগত হিসাবের সংখ্যা বেশী হয় এবং সঞ্চয়ী হিসাব খুলে থাকে তবে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ কম হলেও চলবে। অন্যদিকে আমানতকারীদের হিসাবসমূহ যদি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের হয়ে থাকে, এবং চলতি হিসাবে হয় তাহলে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ বেশী প্রয়োজন হবে।

মাধ্যমিক রিজার্ভের আকার Size of Secondary Reserve :

মাধ্যমিক রিজার্ভের সম্পত্তিসমূহ উপার্জনশীল সম্পদ তবে নগদানে রূপান্তরযোগ্য এরূপ সম্পদে রাখা সম্পত্তির পরিমাণ যত বেশী হবে। অনুপার্জনযোগ্য কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ তত কম। বিপরীত অবস্থা হলে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ বেশী হবে।

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

vi. কার্যকরী রিজার্ভের সমন্বয় ও ইচ্ছার ইতিহাস Willingness and experience of adjustment of working reserves :

বড় বড় নগদান চাহিদা প্রাত্যহিক বিদ্যমান কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ থেকে মিটানো সম্ভব না হলে সাধারণত: তিনটি বিকল্প থাকে যথা :

ক. কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে সাহায্য নেয়া

খ. অন্য কোন ব্যাংক থেকে পারষ্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে অস্থায়ী ধার নেয়া, অথবা

গ. ঋণ পত্র তথা মাধ্যমিক রিজার্ভ সম্পদে রূপান্তর করে চাহিদা মেটানো। যদি বিকল্প অবলম্বনের ইতিহাস ও অভ্যাস থাকে তাহলে কম পরিমাণের অন্যথায় বেশী পরিমানের কার্যকরী রিজার্ভ রাখা বাঞ্চনীয়।

vii অন্য ব্যাংকের চলতি আমানতের তারতম্য – Variation in the size of current Account of other Banks :

অন্য ব্যাংকে বড় পরিমাণের চলতি হিসাব যে ব্যাংকে, তাদের প্রয়োজন মেটানোর প্রস্তুতির জন্য অপেক্ষাকৃত বেশী কার্যকরী রিজার্ভ রাখতে হয়।

বহি: নির্ধারক সমূহ -External Factors :

কার্যকরী রিজার্ভের বহিঃ নির্ধারক সমূহ মূলত দুইভাবে হয়ে থাকে। যথা : জাতীয় বিবেচ্য বিষয় ও আঞ্চলিক বিবেচ্য বিষয়। পর্যায়ক্রমে এ দুটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা দেখাযেতে পারে।

আঞ্চলিক নির্ধারণ বিষয়সমূহ Local Factors

(i) ব্যাংকের অবস্থান – Location of the Bank :

ব্যবসায় বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক ক্রিয়াকান্ডের তিনি ব্যাংক সাধারণত তিন রকম জায়গায় অবস্থিত হতে পারে। উন্নত অবস্থান, মধ্যম উন্নত অবস্থান ও সাধার পল্লী অবস্থান। উন্নত অবস্থানে কার্যরত ব্যাংকে তুলনামূলক ভাবে সর্বোচ্চ পরিমাণে কার্যকরী রিজ প্রয়োজন। অপরপক্ষে সাধারণ / পল্লী এলাকায় অবস্থিত ব্যাংক শাখার জন্য অপেক্ষাকৃত অনেক কম কার্যকর রিজার্ভ দরকার। এরূপভাবে অবস্থানভেদে ব্যাংকের কার্যকরী রিজার্ভের তারতম্য হওয়া স্বাভবিক।

(ii). মক্কেলদের ব্যাংক মনার তারতম্য -Variations of Banking habits of the clients :

ব্যাংকের মক্কেলগণ যতবেশী ব্যাংক মনা অর্থাৎ প্রতিটি লেনদেন ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে তথ্য চেকের মাধ হয়ে থাকে সে ব্যাংকের কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ অপর একটি ব্যাংক যার মক্কেলগণ টাকা জমা দেয় এক কালেভদ্রে উত্তোলন করে এরূপ ব্যাংকের চেয়ে অনেক বেশী।

iii. আঞ্চলিক ব্যবসায় বাণিজ্যের অবস্থা Conditions of Business of Locality

যে অঞ্চলের ব্যব বাণিজ্যের অবস্থা উন্নত সে অঞ্চলে কার্যরত ব্যাংকের আমানত উত্তোলনের চাহিদা বেশী। প্রকারান্তে কার্যক রিজার্ভের পরিমাণ বেশী হয়। অন্যদিকে যে অঞ্চলে ব্যবসায় বাণিজ্যের অবস্থা তুলনামূলক কম সে অসুস আমানতের উত্তোলনের পরিমাণ কম সুতরাং কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ কম হয়।

iv. মৌসুমী চক্রের প্রভাব-Seasonal Influence :

অঞ্চল ভেদে মৌসুমী চক্র অর্থনৈতিক ক্রিয়াকারে প্রভাব রাখে। যে মৌসুমে ক্রিয়াকান্ডে ব্যবসায় বাণিজ্যে ভালো অবস্থা হলে অধিক পরিমাণ আমান উত্তোলন হতে পারে সেজন্য কার্যকরী রিজার্ভের বেশী প্রয়োজন। যে ঋতুতে ব্যবসায়িক লেনদেন কম হ ব্যবসায় মন্দাবস্থা লক্ষ্য করা যায় সে ঋতুতে কার্যকরী রিজার্ভের প্রয়োজন কম হয়।

v.অন্য ব্যাংকের অবস্থান Location of other Bank

ব্যাংকের পার্শ্ববর্তী এলাকার অন্য ব্যাংকের সংখ্যা কম হলে লেনদেনের পরিমান বৃদ্ধি পায়। জনগণ তুলনামূলক বেশী আমানত রাখে এবং উত্তোলনের পরিমান অধিক থাকে। ফলে ব্যাংকে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণত বেশী লক্ষ্য করা যায়। কোন কোন ক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী এলাকায় ব্যাংক থাকার কারণে প্রয়োজনে অর্থ বার আনতে পারে বিধায় কার্যকরী রিজার্ভ কোন কোন সময় কম লাগে।

vi. এলাকার অন্য ব্যাংকের কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ Volume Working Reserve Other Banks of the Area :

এলাকায় কার্যরত অন্যান্য ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ বেশী হলে আলোচিত ব্যাংকের কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ ও বেশী প্রয়োজন হবে। বহিঃ নির্ধারক বিষয় সমূহের মধ্যে অন্য বিষয়টি অর্থাৎ জাতীয় নির্ধারক বিষয় সমূহের স্বল্প বিস্তার আলোচনা নিম্নে দেওয়া হল:

কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]

১ যার প্রাপ্যতা ও যার ব্যয় Availability and cost of borrowing

স্বল্প সুদে মুদ্রা বাজার থেকে অথবা প্রতিযোগী ব্যাংক সহ অপর কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে সহজ শর্তে ও অল্প সময়ে প্রয়োজন মত ধার নেওয়া সম্ভব হলে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত কম হলেও ব্যাংক কার্যক্রম ব্যাহত হয় না। অপর পক্ষে যার গ্রহণের সুযোগ সীমিত অথবা বেশী রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ।

২. জাতীয় অর্থনৈতিক অবস্থা Condition of National Economy and Commerce :

সারাদেশে ব্যবসায় বাণিজ্যের অবস্থা চাঙ্গা থাকলে ব্যবসায়ীদের ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেনও বেশী পরিমাণের ও বেশী সংখ্যায় হয়ে থাকে। এমতাবস্থায় ব্যবসায়ীগণ ব্যাংকে আমানতের পরিমাণও বেশী বেশী রাখেন এবং ব্যবসায়ীক প্রয়োজনে চেকের মাধ্যমে পরিশোধও বেশী বেশী করে থাকেন। এরূপ পরিস্থিতিতে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত বেশী রাখা নিরাপদ। অপরপক্ষে জাতীয় ভিত্তিতে ব্যবসায় বাণিজ্যে মন্দা দেখা দিলে বিপরীত অবস্থা সৃষ্টি হয়। সেরূপ অবস্থায় কার্যকরী রিজার্ভের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত কম হওয়াই স্বাভাবিক।

৩. নিকাশ ঘর দক্ষতা- Effciency of Clearing House :

নিকাশ ঘর ব্যবস্থায় আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বল্প সময়ে লেনদেন সম্পাদন সম্ভব হলে অপেক্ষাকৃত কম রিজার্ভ রাখাই ব্যাংকের জন্য যথেষ্ট। কিন্তু নিকাশ ঘর কার্যক্রমে গতানুগতিক পদ্ধতি ব্যবহার করলে বিলম্বে লেনদেন সম্পাদিত হয়। এবং ভুল ত্রুটি শোধরাতেও অনেক সময় লেগে যায়। এমতাবস্থায় ব্যাংক পর্যায়ে কার্যকরী রিজার্ভের পরিমান বেশী না রাখলে বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে বাধ্য।

আরও পড়ুনঃ

“কার্যকরী রিজার্ভ নির্ধারক বিষয় সমূহ [ Factors Determining Working Reserves ]”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন